শিরোনাম :

  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ অসাম্প্রদায়িক সমাজ গড়তে পারলে বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগ সার্থক হবে : রাষ্ট্রপতি যারা মানবতাবিরোধীদের বাঁচানোর চেষ্টা করছে, তাদেরও বিচার হবে : প্রধানমন্ত্রী বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
ঘূর্ণিঝড় : আমরা ত্রাণ চাই না, টেকসই উন্নয়ন চাই
পটুয়াখালী প্রতিনিধি :
১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৩:৪১:১৩
প্রিন্টঅ-অ+


শতবছরের বৃদ্ধ মো. সোলাইমান কাজীর বাড়ি পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম সুবিদখালী এলাকায়। ঘূর্ণিঝড়ের কথা বলতেই আঁতকে ওঠেন। বলেন, জীবনে ছোটবড় অনেক ঘূর্ণিঝড় দেখেছি। তার মধ্যে ১৯৭০ সালের ১২ নভেম্বরের ঘূর্ণিঝড় ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ। ১১ তারিখও সব ঠিক ছিল। কিন্তু একদিন পরই পুরো দক্ষিণাঞ্চলের চিত্র পাল্টে যায়। গাছের ডালে কিংবা বাড়ির ঘরের খুঁটির সঙ্গে স্বজনদের মরদেহ ঝুলে থাকতে দেখেছি। যেদিকে চোখ যেত শুধু মানুষ, আর মানুষের মরদেহ। তখন বাতাসে কান পাতলেই মৃত্যুপথযাত্রী মানুষের আর্তনাদ শুনতে পাচ্ছিলাম। সে সময় দেশে অনেক অভাব ছিল।

একই উপজেলার উত্তর রামপুর এলাকার বাসিন্দা আশি-ঊর্ধ্ব রফিক হাওলাদার বলেন, ৭০-এর ঘূর্ণিঝড় দেখেছি, এরপর ২০০৭ সালে সিডরের তাণ্ডব দেখেছি। যা পটুয়াখালীসহ উপকূলীয় এলাকাকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছিল। যার ক্ষত এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি এ অঞ্চলের মানুষ। সেদিনের সেই দুঃসহ স্মৃতি আজও জেগে আছে স্বজনহারাদের মাঝে। যা দুঃস্বপ্নের মতো আজও তাড়া করে তাদের।

রাঙ্গাবালী এলাকার বাসিন্দা ষাটোর্ধ্ব রফিক মিয়া জানান, আগে দেশ উন্নত ছিল না তাই ঘূর্ণিঝড়ে অনেক মানুষ মারা যেত। বর্তমানে দেশ উন্নত হয়েছে, কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ে মৃত্যু থামছে না।

গলাচিপা এলাকার ষাটোর্ধ্ব আউয়াল দেওয়ান জানান, ৭০ এর ঘূর্ণিঝড়ের পর আমাদের প্রাণের নেতা বঙ্গবন্ধু পটুয়াখালী এসেছিলেন। মানুষের কষ্টে তিনি নিজেও কষ্ট পেতেন। আমরা ত্রাণ চাই না, টেকসই উন্নয়ন চাই। যাতে আর কাউকে প্রাণ হারাতে না হয়।



এদিকে ৭০ এর প্রলয়ঙ্কারী ঘূর্ণিঝড়ে নিহতদের স্মরণে ১২ নভেম্বরকে উপকূল দিবস ঘোষণা ও উপকূল বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি জানানো হয়েছে। এ জন্য পটুয়াখালীতে মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) মানববন্ধন করেছেন স্থানীয়রা।

১৯৭০ সালের সেই প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড়ে উপকূলের লাখ লাখ মানুষসহ বিপুল সংখ্যক গবাদি পশু-পাখি মারা যায়। সেই তাণ্ডব থেকে যারা বেঁচে গিয়েছিলেন তারা স্বজন-সম্পদ সব হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যান। তাই দিনটিকে সরকারিভাবে উপকূল দিবস ঘোষণাসহ এ অঞ্চলের মানুষের অবস্থার পরিবর্তনে উপকূল বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি জানিয়েছেন এ অঞ্চলের মানুষ।





আমার বার্তা/১৩ নভেম্বর ২০১৯/রহিমা



 


আরো পড়ুন