শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
চাঁদপুর মন্দিরে হামলার ঘটনায় গ্রেপ্তার ২৯ জন কারাগারে
২১ অক্টোবর, ২০২১ ১৫:৪৭:৫৪
প্রিন্টঅ-অ+


চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে মন্দিরে হামলা ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১০টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতনামা প্রায় পাঁচ হাজার জনকে। ঘটনার পর থেকে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২৯ জনকে। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়।।

হাজীগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদ ইব্রাহীম খলিল জানান, মন্দিরে হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১০টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে পুলিশ বাদি হয়ে অজ্ঞাত পরিচয় ২ হাজার থেকে ২২শ’ জনকে আসামি করে দুটি করে মামলা দায়ের করেছেন।

গত কয়েকদিনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা আরও আটটি মামলা দায়ের করেছেন। সবশেষ বুধবার (২০ অক্টোবর) মামলা হয়েছে । প্রতিটি মামলায় অজ্ঞাত পরিচয় তিনশ থেকে চারশ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ সব মামলায় গ্রেপ্তার ২৯ জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

গত ১৩ অক্টোবর সকালে কুমিল্লা শহরের একটি মন্দিরে কুরআন অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে কয়েকটি মন্দিরে হামলা হয়। এর জেরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ বাজারে লক্ষ্মীনারায়ণ জিওর আখড়া মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুর এবং হামলাকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে শহরে বিজিবি মোতায়েন করা হয় পরে।

ওই সংঘর্ষে তিনজন বুধবার রাতে ও একজন বৃহস্পতিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে মারা যান বলে ওসি।

নিহতরা হলেন- টাইলস মিস্ত্রি চাপাইনবাবগঞ্জের সুন্দরপুর বাগডাঙা এলাকার শামসুর রহমানের ছেলে মো. বাবলু (৩৫), হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার ১১ নম্বর ওয়ার্ডের রান্ধনী মোড়ার তাজুল ইসলামের ছেলে আল আমিন (১৮), একই এলাকার মো. ফজলুর ছেলে ইয়াছিন হোসেন হৃদয় (১৪) ও পৌরসভার রান্ধনী মোড়ার বাচ্চুর ছেলে মো. শামীম (১৯) ও ট্রাকচালক সাগর (২৫)। আহত হন পুলিশ সদস্যসহ আরও ৩০ জন।

এদিকে এ ঘটনা তদন্তে চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে গঠিত তদন্ত কমিটির ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার কথা থাকলেও সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তারা আরও সময় চেয়েছেন বলে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “ঘটনা তদন্তের জন্য ৫ সদস্যের কমিটিকে এক সপ্তাহের সময় দেওয়া হয়েছিল; তবে তারা আরও সময় চেয়েছে। তদন্তের স্বার্থে তাদের আরও ৫/৭ দিন সময় বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।”

উল্লেখ্য, কুমিল্লার ঘটনার জেরে ১৩ অক্টোবর রাতে হাজীগঞ্জ পৌর এলাকায় মিছিল বের করে লক্ষ্মীনারায়ণ আখড়ায় হামলা চালানো হয়। এ সময় তাদের বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনা ঘটলে হাজীগঞ্জে ১৪৪ ধারা জারি করে উপজেলা প্রশাসন। মোতায়েন করা হয় বিজিবি। তিন দিন পর প্রত্যাহার করা হয় ১৪৪ ধারা।

আমার বার্তা/ সি এইচ কে


আরো পড়ুন