শিরোনাম :

  • রাজধানীতে ট্রাকের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
কিশোর গ্যাং প্রতিরোধে নওয়াব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজে সচেতনতা মূলক সভা
নগর প্রতিবেদক, উত্তরা
২৩ আগস্ট, ২০২২ ১৮:৩৭:০২
প্রিন্টঅ-অ+

কিশোর গ্যাং প্রতিরোধে উত্তরার নবাব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজে সচেতনতা মুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার (২২ আগস্ট) বিকেলে নবাব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজ ছাত্রদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে শিক্ষার্থী আহত হওয়ার ঘটনার পর আজ এই সভা আয়োজন করা হয়।


উত্তরা পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহিরুল ইসলামের আয়োজনে মঙ্গলবার দুপুরে নবাব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজের অডিটোরিয়ামে কলেজের শিক্ষক ও ছাত্রদের নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।


উত্তরা পূর্ব থানা এলাকা হতে কিশোর গ্যাং প্রতিরোধে তৎক্ষানিক ব্যবস্থা গ্রহন এবং ছাত্রদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে এই আয়োজনে প্রশাসন ও শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বিমান বন্দর জোনের সহকারি পুলিশ কমিশনার সাইফুল ইসলাম সাইফ, উত্তরা পূর্ব থানা ওসি জহিরুল ইসলাম ও ওসি অপারেশন, নবাব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহিনুর ইসলাম, সহকারি প্রধান শিক্ষক খালিদা পারভিন-সহ স্কুল ও কলেজের অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ ।


আলোচনা সভার শেষে ওসি জহিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, উত্তরা পূর্ব থানা এলাকায় বড় বড় কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা কিশোর গ্যাং প্রতিরোধে স্কুল ও কলেজের ইউনিফর্ম পরিধান করে সিগারেট ও আড্ডাবাজির উপর আমরা কড়া নজরদারি রেখেছি। যেসব ছাত্ররা উশৃঙ্খল করার চেষ্টা করবে, পুলিশ সাথে সাথে তাদের আটক করবে।       


এর আগে গত সোমবার বিকেলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে নওয়াব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রদের দুই গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। আজমপুর শাহজালাল এভিনিউতে সোমবার বিকেলের ওই ঘটনায় কমপক্ষে ৫ ছাত্র আহত হয়।


প্রত্যক্ষদর্শি নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ছাত্র জানায়, অভি গ্রুপের সমর্থকদের উপর হামলায় কলেজের অধ্যক্ষ শাহীনূর মিয়া সহ একাধিক শিক্ষকের মদদ ছিলো। কারন শিক্ষকদের মধ্যেও দুই ভাগ রয়েছে এবং একটি অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন অধ্যক্ষ শাহীনূর মিয়া। সংঘর্ষে মদদ দাতাদের মধ্যে শিক্ষক শরিফুল ইসলাম ও মনির স্যার অন্যতম বলে অভিযোগ করেছে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী। আহত আরইয়ানকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন কলেজ শিক্ষক শরিফুল ইসলাম ও মনির।


ঘটে যাওয়া ঘটনার বিষয় জানতে অধ্যক্ষ শাহীনূর মিয়ার সাথে মুঠো ফোনে ঘটনার বিবরণ জানতে চাইলে তিনি আমার বার্তাকে বলেন, আমি আজকে সকালে বিষয়টি জেনেছি শুনেছি। আমরা প্রশাসনের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিব। শিক্ষক জড়িত থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করে বলেন, শিক্ষকরা ঘটনা শুনে সেখানে গিয়েছেন, তারপরও আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবো। 


 

আরো পড়ুন