শিরোনাম :

  • ড. কালাম স্মৃতি পদক গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী বিকেলে রাজহংস উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী অবশেষে মাঠে নামতে যাচ্ছেন মেসি! ভিকারুননিসার নতুন অধ্যক্ষের বৈধতা নিয়ে রিটের আদেশ আজ বছিলায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান : তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ১৭ অক্টোবর
কৃষ্ণা চৌধুরীকে বাসচাপা : চালকের স্বীকারোক্তি
নিজস্ব প্রতিবেদক :
০৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৫৯:০০
প্রিন্টঅ-অ+


বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) কর্মকর্তা কৃষ্ণা রায় চৌধুরীকে চাপা দেয়া বাসের চালক মোরশেদ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

মঙ্গলবার তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় মোরশেদের জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম আতিকুল ইসলাম তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। রেকর্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

গত ২৭ আগস্ট দুপুরে রাজধানীর বাংলামোটরে ফুটপাতে উঠে গিয়ে কৃষ্ণা চৌধুরীর পা পিষে দিয়ে চলে যায় ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসের একটি বাস। হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসকরা হাঁটুর নিচ থেকে তার পা কেটে ফেলেন।

পুলিশ জানায়, অফিস শেষে বাসে উঠতে বাংলামোটরে সড়কের পূর্ব পাশের ফুটপাতে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। ওই সময় শাহবাগমুখী ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসের একটি বাস ফুটপাতে উঠে গেলে তার নিচে চাপা পড়েন কৃষ্ণা চৌধুরী। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজে (ঢামেক) নেয়া হয়। সর্বশেষ সেখান থেকে তাকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে বিআইডব্লিউটিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসের একটি দ্রুতগামী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফুটপাতের ওপরে দাঁড়িয়ে থাকা আমাদের সহকর্মী কৃষ্ণা রায়কে চাপা দেয়। উনার বাঁ পায়ে প্রচণ্ড আঘাত লাগে। পরে অন্য সহকর্মীদের সহযোগিতায় প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়, সেখান থেকে পাঠানো হয় পঙ্গু হাসপাতালে।

ঘটনার পরের দিন হাতিরঝিল থানায় একটি মামলা করেন কৃষ্ণার স্বামী রাধে শ্যাম চৌধুরী। এর আগে ট্রাস্ট পরিবহনের পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়। ওই প্রস্তাবে রাজি না হয়ে তিনি মামলাটি করেন।

গত রোববার রাজধানীর মিরপুর কাজীপাড়া থেকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ঢাকা মেট্রোর উত্তর বিভাগ বাস চালক মোরশেদকে গ্রফতার করে।



আমার বার্তা/০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন