শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতি
অবৈধ ভোটার নিয়েই নির্বাচন সম্পন্নের পায়তারা
মুনিরুল তারেক
০৪ এপ্রিল, ২০২২ ২৩:০৯:০১
প্রিন্টঅ-অ+

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির নির্বাচনের ভোটার তালিকায় ভুয়া ভোটার প্রবেশ করানোর অভিযোগ উঠেছে। সূত্র জানিয়েছে, সম্ভাব্য সভাপতি প্রার্থী মেসার্স শাপলা মিডিয়া ইন্টারন্যাশনালের কর্নধার সেলিম খান একাই বিভিন্ন নামের ৩৯ টি প্রতিষ্ঠান খুলেছেন। সেগুলোর নামের বিপরীতে ৩৯ জনের নাম ভোটার তালিকায় প্রবেশ করিয়েছেন যাদের প্রায় কেউই কোনো সিনেমা প্রযোজনা করেননি। শুধু নামে মাত্র প্রতিষ্ঠানের মালিক বনে আছেন।


বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির নির্বাচনী তফসিলে নির্বাচন সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশাবলীর ২ নম্বর পয়েন্টে উল্লেখ আছে যে, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের স্মারক নং- বাম/টিও-১/সি-৯/৯২ (অংশ-৩)/২৮৪ তারিখ: ০৪/০৬/২০১১ মোতাবেক এক ব্যক্তির মালিকানায় যতগুলো প্রতিষ্ঠানই থাকুক না কেন, কোন প্রতিষ্ঠানের নামে আলাদা টিআইএন না থাকিলে ওই প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধির ভোটাধিকার থাকিবে না। একটি প্রতিষ্ঠান একটি টিআইএন’র বিপরীতে একটি ভোট প্রদানের অধিকারী হইবে। একই টিআইএন ব্যবহার করে একটি নির্বাচনে একাধিকবার ভোটার হওয়া যাইবে না।


কিন্তু, প্রযোজক সেলিম খান এই নির্দেশনার তোয়াক্কা না করে একাধিক প্রতিষ্ঠানে একই টিআইএন নম্বর ব্যবহার করে ৩৯ জন ভোটার সৃষ্টি করেছেন। টিওটি ফিল্মস প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের কর্নধার খোরশেদ আলম খসরু নির্বাচন আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর লিখিতভাবে জানিয়ে ওই ৩৯ জনের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার আবেদন করেছিলেন। তবে, নাম বাতিলের যথার্থতা থাকা সত্তে¡ও অজ্ঞাত কারণে তাদের নাম বাতিল হয়নি বলে জানা গেছে।


যোগাযোগ করলে চলচ্চিত্র প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু দৈনিক আমার বার্তাকে বলেন, নির্বাচনী তফসিলে উল্লেখিত নির্দেশনার আলোকে অবৈধ ভোটার চিহ্নিত করে তাদের নাম তালিকা থেকে বাতিলের জন্য আবেদন করেছি। আপীল বোর্ড শুনানি করলেও নিজেদের নির্দেশনা নিজেরাই পালন না করে তালিকা থেকে তাদের নাম বাদ দেওয়া যাবে বলে না সিদ্ধান্ত জানিয়েছে। আমি মনে করি কোন একটি পক্ষকে সুবিধা দেওয়ার জন্যই অবৈধ ভোটার প্রমাণ হওয়ার পরেও তাদের নাম বাদ দেওয়া হয়নি। আইনজীবীর সঙ্গে আলোচনা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।


জানতে চাইলে নির্বাচন আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান এ কে আলী আহাদ খান দৈনিক আমার বার্তাকে বলেন, খোরশেদ আলম খসরুর আবেদনের প্রেক্ষিতে বিষয়টির শুনানি করেছি। আর আমরা এটি নিয়ে এনবিআরের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা ভোটার থাকতে পারবেন, তাতে সমস্যা নেই।


‘নির্বাচনী তফসিলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে এক টিআইএন একাধিক প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার হলে তারা ভোটাধিকার পাবে না’- এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে কথা বলেছি, সমস্যা হবে না।


মন্ত্রণালয়ের কোন কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছে জানতে চাইলে এ কে আলী আহাদ খান অস্পষ্টতার সঙ্গে বলেন, আপনি জানতে চেয়েছেন তাই তথ্য দিয়েছি, এর বেশি কিছু বলতে পারবো না।

আরো পড়ুন