শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
দাম বাড়ার উত্তাপে অস্থির কাগজের বাজার
০৩ এপ্রিল, ২০২২ ১১:৩৫:৩৫
প্রিন্টঅ-অ+

দাম বাড়ার উত্তাপে অস্থির কাগজের বাজার। ৩ মাসে দাম বেড়েছে ৪৪ শতাংশ পর্যন্ত। এতে বেকায়দায় পড়েছে তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন শিল্পে দরকারি কার্টন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।


এরই মধ্যে অনেক কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে দাবি করে উদ্যোক্তারা বলছেন, ইচ্ছেমতো বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে কাগজের মিলগুলো। এভাবে চলতে থাকলে দেশে-বিদেশে পণ্য সরবরাহ ব্যবস্থাপনায় বড় সংকটের আশঙ্কা করে সরকারের দ্রæত হস্তক্ষেপ চান তারা।


যেন ছোঁয়াচে রোগের মত দাম বৃদ্ধির প্রতিযোগিতা ছড়িয়ে পড়েছে দেশের সব অর্থনৈতিক কর্মকাÐে। আর এই চাপে গত ৬ মাস ধরে ধুঁকতে ধুঁকতে এবার মরতে বসেছে তৈরি পোশাক, ওষুধসহ বিভিন্ন শিল্পে দরকারি কার্টন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।


উদ্যোক্তাদের দাবি, দিনে দুইবারও বাড়ছে প্রধান কাঁচামাল কাগজের দাম। এতে যেমন নতুন করে অর্ডার নিতে পারছেন না তেমনি আগের অর্ডার অনুযায়ী কার্টন সরবরাহ করতে গিয়ে গুনতে হচ্ছে লোকসান।


হিসাব বলছে, গেল তিন মাসে প্রতি কেজি মিডিয়া পেপারের দাম বেড়েছে ৪৪ শতাংশ, ৩২ শতাংশ বেড়েছে অরিজিনাল লাইনার পেপারে আর লাইনারের কাজ চালিয়ে নেওয়া রঙিন পেপারের দাম বেড়েছে ৪৩ শতাংশ। কার্টনসহ অ্যাক্সেসরিজ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর দাবি, যোগসাজশে ব্যবসা করে যাচ্ছে দেশের ২০-২২টি কাগজকল।


কসমো গ্রæপের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন হায়দার বলেন, আমাদের দেশে পেপার মিলগুলো যেটা করতেছে সেটা হচ্ছে বøাকমেইল। এর ফলে দেশে ৩০ শতাংশ কার্টন ফ্যাক্টরি বন্ধ হয়ে গেছে।


বিজিএপিএমইএ এর সভাপতি মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন মতি বলেন, অধিকাংশ মেম্বাররাই এখন লস দিয়ে ফ্যাক্টরি চালিয়ে রেখেছেন এ আশায় যে, ভবিষ্যতে হয়তো আমাদের এবং সরকারের হস্তক্ষেপে মূল্যটা একটা নিয়ন্ত্রণ পর্যায়ে চলে আসবে। প্রশ্ন এটাই যে, আমাদের মেম্বাররা কতদিন এভাবে টিকে থাকবে।    


বিকেএমইএ এর নির্বাহী মোহাম্মদ হাতেম বলেন, এটার মূল্যবৃদ্ধি উঠানামাতে আনপ্রেডিক্টেবল পরিস্থিতি যদি ঠিক না করা যায় তাহলে আলটিমেটলি সাফার করবে পোশাকশিল্প।


পোশাকখাতের উদ্যোক্তারা বলছেন, প্যাকেজিং খাতকে স্থিতিশীল করতে না পারলে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা হারাবে দেশের প্রধান রপ্তানিখাত। নেতিবাচক প্রভাব পড়বে রপ্তানি আয়ে।


কাগজের দাম দ্রæত নিয়ন্ত্রণে না এলে কার্টনের মাধ্যমে অভ্যন্তরীণ বাজারে সরবরাহ করা বিভিন্ন পণ্যের দামও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা খাত সংশ্লিষ্টদের।

আরো পড়ুন