শিরোনাম :

  • বিদ্যুৎ স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে ‘৮ থেকে ১০ ঘণ্টা’ ঢাকায় বিদ্যুৎ স্বাভাবিক ‘রাত ৮টার মধ্যে, চট্টগ্রামে ৯টায়’দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুমআফগান ক্রিকেট বোর্ডের সিইওকে বিদায় দিল তালেবান
ঢাকা উইমেন কলেজের জাতীয় শোকদিবস অনুষ্ঠান
নগর প্রতিবেদক, উত্তরা
২৭ আগস্ট, ২০২২ ১৯:৩৩:২৩
প্রিন্টঅ-অ+

রাজধানী ঢাকার উত্তরায়১২ নং সেক্টর ঢাকা উইমেন কলেজের আয়োজনে কলেজের উত্তরার নিজস্ব ক্যাম্পাসে জাতীয় শোকদিবস উপলক্ষে শনিবার সকাল ১১ টায় আলোচনা সভা ও দোআ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঢাকা১৮ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাবীব হাসান এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকা উপ উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডীন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ নাসির উদ্দীন।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাবিব হাসান বলেন, বঙ্গবন্ধু না হলে বাংলাদেশ হতো না। বঙ্গবন্ধু না হলে স্বাধীনতা পেতামনা, আমাদের সেনা সদস্যরা জিয়াউর রহমানকে বলেছিল পাকিস্তান থেকে অস্ত্র আসছে তা যেন নামাতে না পারে। কিন্তু জিয়া পাকিস্তানের গুপ্তচর হওয়ায় সেই অস্ত্র নামাতে সে সহযোগিতা করেছে। যা বাংলাদেশের মানুষের বিরুদ্ধে ব্যাবহৃত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু ছোট বেলা থেকেই দুরদর্শি ছিলেন। একদিন তার ক্লাসে আসেননি শুনে তিনি এগিয়ে যেতেই দেখেন ঐ ছেলেকে আটক করে রাখা হয়েছে তখন তিনি চেষ্টা করেন তাকে ছাড়াতে পারেননি তিনি। ফিরে গিয়ে বন্ধুদেরকে সাথে নিয়ে এসে ক্লাসমেটকে উদ্ধার করেন।


বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. আজাদ বলেন, জাতীয়তাবাদের বৃত্তি ৭১ এর বৃত্তি ভাষাগত ও সংস্কৃতি মিল। আমাদের দেশে একদল লোক আছে যাদের কাজেই হচ্ছে ভালো কথা বললেই বলে কমিউনিষ্ট। গনতন্ত্রই যে কল্যাণ তাই অনেকেই বলে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কন্যা ধর্ম নিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয় সেটা তিনি প্রমাণ করেছেন। ধর্মনিরপেক্ষতা মানে সংস্কৃতিগত ঐক্য।


ড. নাসির উদ্দিন বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন হাজার শ্রেষ্ঠ বাঙালি। তিনি আমাদেরকে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র উপহার দিয়েছেন। আর জননেত্রী শেখ হাসিনার সবচেয়ে বড় অর্জন হলো তিনি সেনাবাহিনীতন্ত্র থেকে আমাদেরকে গনতন্ত্র উপহার দিয়েছেন।


এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ৫৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নাসির উদ্দীন, তুরাগ থানা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী নাজিম উদ্দীন, বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ নেতা সাবেক ছাত্রনেতা হাজী মোঃনাসির উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ মনসুর আলী, আব্দুল আউয়াল নুরুল আমিন, সাবেক ছাত্রনেতা শফিকুল ইসলাম। সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব ও কলেজের গভর্নিং বডির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ মিকাইল শিপার অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন। শেষে বঙ্গবন্ধু সহ পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোআ মোনাজাত ও তোবারক বিতরণ করা হয়।

আরো পড়ুন