শিরোনাম :

  • বিদ্যুৎ স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে ‘৮ থেকে ১০ ঘণ্টা’ ঢাকায় বিদ্যুৎ স্বাভাবিক ‘রাত ৮টার মধ্যে, চট্টগ্রামে ৯টায়’দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুমআফগান ক্রিকেট বোর্ডের সিইওকে বিদায় দিল তালেবান
জবিতে চুরির ১৫দিনেও দেওয়া হয়নি তদন্ত প্রতিবেদন
জবি প্রতিনিধি:
০৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২২:১৪:৪৬
প্রিন্টঅ-অ+

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলে কাঁচের দরজা ভেঙে চুরির ঘটনা ঘটে গত ২০ আগস্ট, ২০২২ তারিখে। এ সময় কক্ষের সামনে থাকা দুটি সিসি ক্যামেরার একটি খুলে ফেলা হয়, আরেকটি অন্যদিকে ঘুরিয়ে রাখা হয়। 


উক্ত ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় এবং কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়। উক্ত ঘটনার ১৫ দিন পার হয়ে গেলেও তদন্ত প্রতিবেদন এখনো জমা দিতে পারেনি গঠিত তদন্ত কমিটি।


গঠিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে চুরির ঘটনা একটা দুঃখজনক বিষয়। এখন পর্যন্ত দশজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এখনো আমরা কিছু পাইনি। কবে নাগাদ তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া যাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন এটা নিশ্চিত বলা যাচ্ছে না। 


উক্ত ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার (নিরাপত্তা শাখা) সাইদুর রহমান রনি বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।


মামলার এজাহারে বলা হয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইকিউএসি অফিসের হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মানিক মিয়া গত ১৮ আগস্ট সাড়ে সাতটার দিকে অফিসের কাজ শেষে অফিস তালাবদ্ধ করে বাসায় যান। শুক্রবার সরকারি ছুটির দিনে আইকিউএসি অফিসে কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী না আসায় ওই ভবনের নিয়মিত নিরাপত্তাকর্মী মো. বোরহান উদ্দিন রানা, মো. ফারুক হোসেন ও সেলিম খানকে ডিউটিতে মোতায়েন করা হয়। নিরাপত্তারক্ষী সেলিম খান রাত ১০টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত ডিউটিতে ছিল। মো. বোরহান উদ্দিন রানা ভোর ৬টা থেকে নিরাপত্তা ডিউটি করার সময় সকাল আনুমানিক সাড়ে ৭টায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন একাডেমিক ভবনের নিরাপত্তারক্ষী বোরহান উদ্দিন রানা আমাকে ফোন করে জানায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইকিউএসি অফিসের দরজার থাই গ্লাস ভাঙ্গা অবস্থায় আছে। আমি বিষয়টি সহকারী প্রক্টর মাহি উদ্দিন মাহি স্যারকে জানিয়ে তাকে সঙ্গে নিয়ে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়স্থ আইকিউএসি অফিসে সামনে যাই। দেখা যায় অফিসের সামনে স্থাপিত দুটি সিসি ক্যামেরা দিক পরিবর্তন করা আছে। পরবর্তীতে আইকিউএসি অফিসের ভেতরে ঢুকে দেখতে পাই কিছু কাগজপত্রসহ মালামাল এলোমেলো ভাবে পরে আছে।


জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এক সহকারী প্রক্টর জানিয়েছেন তদন্ত কমিটি যদি এখনো রহস্য উদঘাটন না করতে পারে তাহলে কিভাবে ভবিষ্যতে এমন চুরি রোধ করা যাবে। পরদিন গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা ছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে বাইরের কেউ ঢোকার সুযোগ ছিল না। ভিতরের লোকই জড়িত বলে তিনি সন্দেহ পোষণ করেন। তিনি আরো বলেন দায়িত্বরত যারা ছিল তারাই এ ঘটনায় জড়িত।

আরো পড়ুন