শিরোনাম :

  • ঢাকায় বাড়তে পারে তাপমাত্রা করোনার ছোবলে এবার চলে গেলেন এসআই মোশাররফ সপ্তাহে তিন দিন ছুটির বিধান আসছে নিউজিল্যান্ডে পেরুতে একদিনেই আক্রান্ত প্রায় ৩ হাজার
করোনা মোকাবিলার মাঝেই যুক্তরাজ্যে বিদ্যুৎ ঘাটতির সম্ভাবনা
আমার বার্তা ডেস্ক :
০১ এপ্রিল, ২০২০ ১১:৫২:২১
প্রিন্টঅ-অ+


যুক্তরাজ্যে করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বিঘ্নিত হতে পারে। অনেক বিদ্যুৎ সংস্থা অনাবশ্যক অবকাঠামোর কার্যক্রম স্থগিত রেখেছে। এমন পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কায় গ্রাহকদের অগ্রীম প্রস্তুতি নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে ইউকে পাওয়ার নেটওয়ার্কস।

যুক্তরাজ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু রাখতে ইতোমধ্যে হিমশিম খাচ্ছে দেশটির বিদ্যুৎ নেটওয়ার্ক। সরকারি লকডাউন, আইসোলেশনের নির্দেশ ও কর্মীদের অসুস্থ হয়ে পড়ায় যেকোনও মুহূর্তে পর্যাপ্ত কর্মীর ঘাটতি দেখা দিতে পারে। এতে অনেকাংশে বন্ধ থাকতে পারে বিদ্যুৎ সরবরাহ। পরিস্থিতি বিবেচনায় জনগণকে টর্চ ও উষ্ণ কাপড় নিয়ে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের জাতীয় বিদ্যুৎ নেটওয়ার্ক দ্য ন্যাশনাল গ্রিড অবশ্য জানিয়েছে, তারা বর্তমান পরিস্থতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারবে। বিদ্যুৎ খাতের প্রধানরা বলছেন, এটা বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য নেটওয়ার্কগুলোর একটি। তবে একটি বৈদ্যুতিক অবকাঠামো সংস্থা, বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্নের আশঙ্কায় তাদের কিছু গ্রাহকদের টর্চ ও উষ্ণ কাপড় নিয়ে প্রস্তুত থাকতে বলেছে।

এদিকে, ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পূর্ব ও পূর্বাঞ্চলে বৈদ্যুতিক তার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ইউকে পাওয়ার নেটওয়ার্কস তাদের কিছু গ্রাহকদের এক বার্তায় সংযোগ বিচ্ছিন্নের প্রস্তুতি নিতে বলেছে। স্থানীয় দৈনিক দ্য টেলিগ্রাফে তাদের ওই সতর্ক বার্তা প্রকাশিত হয়েছে। বার্তায় প্রতিষ্ঠানটি তাদের গ্রাহকদের টর্চ, টুপি, গ্লভস ও চাদর রাখতে বলেছে। একইসঙ্গে বাসায় একটি টেলিফোন ও মোবাইল চার্জ দেয়ার জন্য পাওয়ার ব্যাংক রাখার পরামর্শ দিয়েছে।

ইউকে পাওয়ার নেটওয়ার্কসের এক মুখপাত্র বলেছেন, আমরা নিয়মিত হারে আমাদের অগ্রাধিকার সার্ভিস রেজিস্টারে থাকা গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ করি। যাতে করে তাদের প্রয়োজন মেটানো যায়। বর্তমান পরিস্থিতিতে এটা পূর্বের যেকোনো সময়ের তুলনায় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

এদিকে, যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে একদিনে সর্বোচ্চ ৯৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত দুইদিন মৃতের সংখ্যা কমতে থাকলেও আজ মঙ্গলবার নতুন এই পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এনিয়ে দেশের মোট মৃতের সংখ্যা ১৮০৮ জনে পৌঁছাল।



আমার বার্তা/০১ এপ্রিল ২০২০/জহির

 


আরো পড়ুন