শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
ময়মনসিংহে ‘পরাণ’ সিনেমার নায়ক-নায়িকা, টিকিট নিয়ে হুড়োহুড়ি
১২ জুলাই, ২০২২ ১১:১৪:১৯
প্রিন্টঅ-অ+


রায়হান রাফি পরিচালিত ত্রিভূজ প্রেমের গল্পের সিনেমা ‘পরাণ’র শুটিং হয়েছে ময়মনসিংহে। তাই এই সিনেমা নিয়ে বাড়তি আগ্রহ ছিল ময়মনসিংহের দর্শকদের মাঝে। ট্রেলার প্রকাশের পরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন পরাণ সিনেমার তিন অভিনয়শিল্পী বিদ্যা সিনহা মিম, শরিফুল রাজ ও ইয়াশ রোহানকে।

সিনেমার শুটিং ময়মনসিংহ হওয়ার সুবাদে ময়মনসিংহে এসে সিনেমা দেখেছেন ‘পরাণ’ সিনেমার টিম। সেই টিমে ছিলেন মিম, রাজ ও রোহান।

ঈদের দ্বিতীয় দিন সোমবার (১১ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৩টায় ময়মনসিংহ নগরীর পূরবী সিনেমা হলে হাজির হয় পরাণ টিম। এ সময় সিনেমা হলে কাউন্টারের সামনে টিকিট নিয়ে উচ্ছ্বসিত দর্শকদের মাঝে হুড়োহুড়ির ঘটনাও ঘটে। সিমেনা হল ছিল কানায় কানায় পূর্ণ।

অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম বলেন, ‘পরাণ সিনেমার গল্পটা খুবই সুন্দর। যার পুরোটাই শুটিং হয়েছে ময়মনসিংহে। ঈদের দিন ঢাকার সিনেমা হলগুলো ঘুরে দেখেছি সেগুলোতে প্রচুর দর্শক হয়েছে। আজ পর্যন্ত সবগুলো টিকিটই বিক্রি হয়ে গেছে। আজ ময়মনসিংহে এসে এত দর্শক দেখে আমি খুবই হ্যাপি।’

অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘হল মালিক জানালেন তিন বছর পর পরাণ সিনেমায় হাউজফুল দর্শক পেয়েছেন। এভাবে কয়েকটি সিনেমায় দর্শকপ্রিয়তা পেলে হলগুলো বাঁচানো যাবে। উনার মুখ থেকে এমন কথা শুনতে পেরে আমাদের খুবই ভালো লাগছে। কারণ এই ছবিটার পেছনে আমরা খুবই কষ্ট করেছি।’

নিজের চরিত্র নিয়ে মিম বলেন, ‘আমার চরিত্রটা খুবই চঞ্চল একটি মেয়ের। অনন্যা তার নাম। তার মধ্যে শিশুসুলভ একটি বিষয় রয়েছে। সে একজন কলেজপড়ুয়া। এই বয়সের মেয়েরা যেমন হয়, ডিসিশন নিতে ভুল করে, একটু আবেগী থাকে বেশি। এমন মিষ্টি একটি চরিত্র।’

অনেকে মিন্নির সঙ্গে মিমের চরিত্রকে তুলনা করছেন। এ ব্যাপারে মিমের অভিমত, ‘আমরা গল্পে বলিনি যে কাউকে কেন্দ্র করে। তবে এটা ঠিক যে একটি সত্য ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমাদের গল্প। আমাদের আশপাশে এমন অনেক সত্য ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত হয়েই আমাদের সিনেমাগুলো হয়।’

‘পরাণ’ সিনেমার পুরো শুটিং হয়েছে ময়মনসিংহে। এখানকার পরিবেশ আর আতিথেয়তা নিয়ে মুগ্ধতার কথা বলে গেলেন এ গ্ল্যামার গার্ল। তিনি বলেন, ‘এবারই প্রথম ময়মনসিংহে শুটিং করেছি। ময়মনসিংহ যে এতটা সুন্দর তা কাজ করতে না এলে বুঝতে পারতাম না। তার থেকে বেশি ভালো হচ্ছে ময়মনসিংহের মানুষজন। এখানকার মানুষ খুবই অতিথিপরায়ণ। কাজ করতে গিয়ে মনে হয়েছে এটি আমার পুরোনো স্মৃতিময় একটি শহর। খুবই সাপোর্ট পেয়েছে এ কাজটাতে।’

চিত্রনায়ক শরিফুল রাজ বলেন, ‘আমরা যে পরিমাণ সাড়া পাচ্ছি দর্শকের এতটা আসলে আমরা আশা করিনি। যে পরিমাণ রিভিউ পাচ্ছি এবং হলগুলোতে হাউজফুল থাকছে, ময়মনসিংহে প্রচুর ক্রাউডেট (ভিড়)। তাতে সিমেনাটা নিয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত এবং আশাবাদী।’

তিনি বলেন, ‘প্রথমে ১১টি হলে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। দর্শকের যেমন সাড়া দেখছি তাতে মনে হচ্ছে পরের সপ্তাহ থেকে আরও কিছু হল আমরা পাবো।’

হল ব্যবস্থাপক শেখ মাসুম বলেন, ‘আমরা অনেক খুশি দীর্ঘদিন পর এমন দর্শক দেখে। এই সিমেনার সুবাদে আমরা মিম-রাজদেরও হলে পেয়েছি। করোনার পর থেকে আমাদের ব্যবসা খুবই খারাপ যাচ্ছিল। আমরা হল বন্ধ করে দেওয়ার পরিকল্পনাও করছিলাম। কিন্তু এই সিনেমা আবারও আমাদের আশা জাগিয়েছে। এমন সিনেমা তৈরি হলে আমরা হল মালিকরা বাঁচবো। দর্শক ফিরবে আবারও হলে।’


আরো পড়ুন