শিরোনাম :

  • সাবেক মন্ত্রী ফাইজুল হকের স্ত্রীর মৃত্যু ডিএমপি কমিশনারকে ‘ঘুষ প্রস্তাব’ যুগ্ম কমিশনারের যুক্তরাষ্ট্রে প্লেন বিধ্বস্ত, দুই শিশুসহ নিহত ৫ চীনা পণ্য বয়কটের পক্ষে ৯১ শতাংশ ভারতীয় : জরিপ
বিক্রি হবে 'ভূতের গ্রাম'
আমার বার্তা ডেস্ক :
০১ এপ্রিল, ২০১৯ ১০:২৩:১৬
প্রিন্টঅ-অ+


ভূত আছে না নেই, তা তর্ক সাপেক্ষ। যারা বিশ্বাস করেন না, তাদের কথা আলাদা। কিন্তু যারা মনে করেন, অশরীরীরা চারপাশে রয়েছেন, এই গ্রাম তাদের জন্য। কিন্তু কী এমন রয়েছে সেখানে? দূর থেকে গ্রামের থমথমে চেহারা দেখলে অন্তত এটুকু বোঝা যায় যে, এই গ্রামগুলোতে প্রাণের উচ্ছ্বলতা তেমন নেই।

স্পেনের উত্তরে গ্যালিসিয়ায় রয়েছে আকোরাদা নামের ছোট্ট একটা গ্রাম। গোটা গ্রামে রয়েছে মাত্র ছটা ধূসর পাথরের বাড়ি। এগুলো ছিল ইগলেসিয়াস পরিবারের। দুটি শস্যভাণ্ডার রয়েছে এই গ্রামে।

প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে এই গ্রামে বাস করতেন ওই পরিবারের সদস্যরা। গমের খেত ছিল তাদের। কিন্তু সে সবই আজ পরিত্যক্ত।

৫৭ বছরের এক উত্তরসূরি বাদে গত ৩০ বছর এই পরিবারের কেউ থাকেন না গ্রামে। তিনি ৯৬ হাজার ডলারে বিক্রি করতে চাইছেন পরিত্যক্ত এই গ্রাম। যাকে ঘিরে রয়েছে নানা ভৌতিক গল্প।

শোনা যায়, সন্ধ্যার পর এই গ্রামগুলোতে ঢোকাই যায় না। নেমে আসে অশরীরীরা। ইউরোপজুড়ে শ’খানেকের বেশি গ্রাম ঘিরে রয়েছে এমনই সব গল্প। আসলে বহু বছর পরিত্যক্ত থাকার পর গ্রামকে ঘিরে নানা রটনা গড়ে উঠেছে।

এস্টেট এজেন্সি এক্সপার্ট আলদেয়াস আবানদোনাদাস জানান, এমনই পরিত্যক্ত খান চল্লিশেক গ্রাম বিদেশিরা কিনে সেগুলোতে প্রাণ দিয়েছেন বলা যেতে পারে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে স্পেনের জন্ম হার দ্বিতীয় সর্বনিম্ন। ২০১৭ সালে ছিল ১.৩ শতাংশ। গ্রামীণ এলাকায় বসতি ক্রমশ কমছে। কমছে অল্প বয়সীদের সংখ্যাও।

গ্রামোন্নয়ন দফতরের সমীক্ষা বলছে, ২০৫০ সালের মধ্যে দেশের ৭০ শতাংশই শহরে বাস করবে। পরিত্যক্ত গ্রামগুলো ঘিরে তাই গড়ে উঠছে গল্প।



আমার বার্তা/০১ এপ্রিল ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন