শিরোনাম :

  • প্রধানমন্ত্রী ৮ ব্যক্তি ১ প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পুরস্কার দিলেন রাজধানীতে আজ দিনের তাপমাত্রা বাড়তে পারে ম্যাক্রোঁকে ডিম নিক্ষেপ? আগাম ভোট দিলেন বাইডেন
২২ হাজার কোটি টাকার লটারি!
আমার বার্তা ডেস্ক :
২৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১২:০২:১৮
প্রিন্টঅ-অ+


প্রতি বছর ক্রিসমাসকে সামনে রেখে স্পেনে ছাড়া হয় বিশেষ এক লটারি। স্থানীয় ভাষায় যা পরিচিত এল গোর্দো নামে। কয়েক লাখ কোটি ইউরোর পুরস্কার জিতেন বিজয়ীরা।

স্পেনের এই লটারির ইতিহাস ২০০ বছরের। প্রতিবছরই ক্রিসমাস উপলক্ষে বাজারে ছাড়া হয় এল গোর্দো লটারি, যা নিয়ে দেশটির জনগণের মধ্যেও থাকে বিপুল আগ্রহ।

এই ক্রিসমাস লটারির প্রচলন শুরু ১৮১২ সাল থেকে। স্প্যানিশ লটারি নামের একটি সংস্থার মাধ্যমে দেশটির সরকার এটি পরিচালনা করে। ২০১১ সালে অর্থনৈতিক মন্দায় পড়ার পর তা আংশিক বেসরকারিকরণের পরিকল্পনা নেওয়া হয়। তবে শেষ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন হয়নি।

এই লটারি নিয়ে দেশটির জনগণের উচ্ছ্বাসের শেষ নেই। যেমন কেউ কেউ প্রতিবছর নির্দিষ্ট কোনও বিক্রেতার কাছে থেকে এই লটারি কিনেন। কেউ সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে রাজার বিয়েবার্ষিকী কিংবা মৃত্যুদিনের মতো গুরুত্বপূর্ণ দিবসের সঙ্গে নাম্বার মিলিয়ে লটারি কিনেন।

লটারির টিকিটের দাম ২০০ ইউরো। একই নাম্বার সর্বোচ্চ ১০জন ভাগাভাগি করে কিনতে পারবেন। মোট ১৭০টি সেট রয়েছে। প্রতিটি সেটের বিজয়ীরা পাবেন সর্বোচ্চ ৪০ লাখ ইউরো। একই নম্বর ১০জন নিলে প্রতিজন পাবেন চার লাখ ইউরো বা তিন কোটি ৭৬ লাখ টাকা করে।

সব মিলিয়ে এবার লটারির পেছনে ২৯০ কোটি ইউরো খরচ করেছে স্প্যানিশরা। তার মধ্যে ২৪০ কোটি ইউরো বা ২২ হাজার ৫৮৩ কোটি টাকা পাবেন বিজয়ীরা। ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরে স্প্যানিশরা এই লটারির ড্র দেখতে আসেন।

২২ ডিসেম্বর মাদ্রিদে লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এই আয়োজন সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে জাতীয় টেলিভিশন চ্যানেলেও। টিকেট নম্বর তোলার দায়িত্বে ছিল স্থানীয় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বিজয়ীরা লটারির পুরো টাকাই যে পাবেন তা নয়। বড় একটি অংক দিতে হবে কর বাবদও। সবচেয়ে উপরের লটারি জয়ীদের কাছ থেকে কেটে নেওয়া হবে ৭৬ হাজার ইউরো করে। সূত্র: ডয়েচে ভেলে, এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স



আমার বার্তা/২৪ ডিসেম্বর ২০১৯/জহির


আরো পড়ুন