শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
মেয়েকে টিকা দিতে এসে অজ্ঞান মা!
১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ ১১:৪২:০১
প্রিন্টঅ-অ+

নগরের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের সিজেকেএস কার্যালয়ে মেয়েকে করোনার টিকা দিতে এসে অজ্ঞান হয়ে যান  মা শিরিন আকতার। খবর পেয়ে সহায়তায় এগিয়ে এলেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সিজেকেএস সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।  


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সিজেকেএস কার্যালয়ে মেয়ে কামরুন্নাহার শাহেদাকে করোনার দ্বিতীয় ডোজ দিতে এনেছিলেন মা। এ সময় মেয়ের সঙ্গে তিনিও রোদের মধ্যে কোলে সন্তান নিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকেন। দীর্ঘক্ষণ রোদে দাঁড়িয়ে থাকার কারণে হঠাৎ তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান। সঙ্গে সঙ্গে শিরিন আকতারের কোলের সন্তানটিও ছিটকে দূরে পড়ে যায়। এ সময় পাশে থাকা নারীরা তাকে এবং তার বাচ্চাকে ধরাধরি করে তুলে নিলেও কী করতে হবে তা ভেবে পাচ্ছিলেন না। এমন সময় আ জ ম নাছির উদ্দীন এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ইস্পাহানী প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ-২০২২ উদ্বোধন শেষে গাড়িতে উঠছিলেন।


পরিস্থিতি দেখে তিনি তৎক্ষণাৎ শিরিন আকতারকে সিজেকেএস’র কক্ষে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। প্রাথমিক চিকিৎসা পেয়ে মুর্ছা যাওয়া শিরিন আকতারের জ্ঞান ফিরে এলে তিনি তার টিকা গ্রহণকারী মেয়ের পরিচয় সংগ্রহ করেন। তারপর রেডক্রিসেন্ট স্বেচ্ছাসেবকদের কামরুন্নাহারের নাম ধরে মাইকিং করতে বলেন। মাইকিংয়ের ঘোষণা শুনে কামররুন্নাহার সিজেকেএস’র দোতলা থেকে দৌড়ে নিচে নেমে মা ও তার ভাইয়ের কাছে আসেন। পরে আ জ ম নাছির উদ্দীন মেয়ের কাছ থেকে তার বাবার ফোন নম্বর নিয়ে ঘটনাটি জানান। অসুস্থ মাকে নগদ অর্থ সহায়তা দিয়ে বাসায় পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেন।


শিরিন আকতারে বলেন, আমরা ঈদগাহ রঙ্গীপাড়া এলাকায় থাকি। আমার মেয়ে স্থানীয় নাসরিন রহমান আইডিয়াল স্কুলে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। সিজেকেএস কার্যালয়ে তার করোনার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণের কেন্দ্র ছিল। তাই খুব ভোরে খালি পেটেই আমি মেয়েকে নিয়ে এখানে এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি। কিন্তু সকাল সাড়ে ৯টার সময় মেয়ে টিকা নিতে দ্বিতীয় তলায় চলে গেলে আমি বাচ্চাকে নিয়ে নিচে দাঁড়িয়েছিলাম। হঠাৎ করে আমি অজ্ঞান হয়ে পড়ে যাই। তারপর আমি আর কিছু জানি না।

আরো পড়ুন