শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
ইমরানের সঙ্গে ইলহান ওমরের বৈঠক, পাকিস্তানে নতুন বিতর্ক
২২ এপ্রিল, ২০২২ ১৫:৪৮:৩১
প্রিন্টঅ-অ+

পাকিস্তানে সফর করছেন মার্কিন নারী আইনপ্রণেতা ইলহান ওমর। দেশটিতে গত সপ্তাহে নতুন সরকার দায়িত্ব নেওয়ার পর এই প্রথম কোনো মার্কিন আইনপ্রণেতা ইসলামাবাদে এলেন। সব ছাপিয়ে এখন পাকিস্তানের রাজনৈতিক বিতর্কের বিষয় ইমরান খানের সঙ্গে তাঁর বৈঠক। সদ্য বিদায়ী পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী দাবি করে আসছেন, তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করার পেছনে যুক্তরাষ্ট্রের ষড়যন্ত্র ছিল। খবর ডনের


এই সফরে অনেক পাকিস্তানি নেতার সঙ্গে দেখা করেছেন ইলহান ওমর। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিনা রব্বানি খার ও জাতীয় পরিষদের স্পিকার রাজা পারভেজ আশরাফ। তবে ইমরান খানের সঙ্গে এই মার্কিন আইনপ্রণেতার বৈঠক নিয়ে এখন বিতর্ক তুঙ্গে।


ইমরান খানের সদ্য সাবেক সরকারের মানবাধিকারমন্ত্রী শিরিন মাজারি টুইটে বলেছেন, বানি গালায় পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন মার্কিন কংগ্রেস সদস্য ইলহান ওমর। তাঁরা ইসলাম-ভীতি ও সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। বৈশ্বিক পর্যায়ে ইসলাম-ভীতির বিরুদ্ধে ভূমিকা রাখায় ও অবস্থান নেওয়ায় ইমরান খানের প্রশংসা করেছেন ইলহান। বিভিন্ন ইস্যুতে সাহসী ও নৈতিক অবস্থান নেওয়ায় ইলহানেরও প্রশংসা করেছেন ইমরান খান।


যুক্তরাষ্ট্রের এই আইনপ্রণেতার সঙ্গে বৈঠকের পরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশ্নের মুখে পড়েন ইমরান খান। বিরোধী দলের নেতাদের সঙ্গে মার্কিন কর্মকর্তারা বৈঠক করায় তাঁর সমালোচনার বিষয়টিও স্মরণ করিয়ে দেন তাঁরা।


শুধু সাংবাদিকই নন, টুইটার ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরাও এই সাক্ষাতের ন্যায্যতা জানতে চান। সরকারি কর্মকর্তারাও এই বিতর্কে সরব হন। এই সাক্ষাতের ঘটনায় ইমরান খানের সমালোচনা থেকে নিজেদের নিবৃত্ত রাখতে পারেননি তাঁরা। সামনে থেকে এই সমালোচনার নেতৃত্ব দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ। তিনি ইমরান খানের কাছে জানতে চান, ইলহান ওমরের সঙ্গে বৈঠক ‘ষড়যন্ত্র কিংবা (পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে) হস্তক্ষেপ ছিল কি না’। তিনি বলেন, কোন ষড়যন্ত্রের জাল বোনা হচ্ছে?


এ সময় যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিরোধী দলের বৈঠককে ষড়যন্ত্রমূলক বলে সমালোচনা করা ইমরান খানের বক্তব্যও স্মরণ করিয়ে দেন নতুন সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকের বিষয়টি তদন্ত করা হতে পারে বলেও সতর্ক করেছেন তিনি।


সানাউল্লাহ বলেন, ইমরান খান যদি নিজে থেকে বৈঠকের বিষয়ে বিস্তারিত প্রকাশ না করেন, মন্ত্রী হিসেবে তিনি সেটা তদন্ত করবেন। কারণ, জনগণের সত্যটা জানা উচিত। অন্যথায় ইমরান খান নিয়াজি তাঁর স্বভাব অনুযায়ী কয়েক দিন পর আরেকটি চিঠি জনসমক্ষে আনবেন।


জানা গেছে, প্রশাসনিকভাবে নয়, ব্যক্তিগত সফরেই পাকিস্তানে এসেছেন এই মার্কিন আইনপ্রণেতা। একজন নারী মার্কিন কংগ্রেস সদস্য হিসেবে ব্যক্তিগতভাবে তিনি এই সফরের আয়োজন করেছেন বলে এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রে থাকা একজন পাকিস্তানি ব্যবসায়ীর মাধ্যমে তাঁর দপ্তর সরাসরি ইমরানের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি ঠিক করেছে বলে এক পিটিআই নেতা জানান।


জাতীয় পরিষদে বিরোধী জোটের আনা অনাস্থা ভোটে হেরে ৯ এপ্রিল ক্ষমতা ছাড়তে হয় ইমরান খানকে। এই অনাস্থা প্রস্তাবের নেপথ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে অভিযোগ করে আসছেন তিনি। প্রমাণ হিসেবে এক ক‚টনীতিক তারাবার্তাকে ‘হুমকির চিঠি’ দাবি করে দলীয় সমাবেশে প্রদর্শন করেন পিটিআই চেয়ারম্যান। এ ছাড়া মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিরোধীদের বৈঠকেরও সমালোচনা করতেন তিনি।

আরো পড়ুন