শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
ইমরান খানসহ নিষিদ্ধ হতে পারে পিটিআই
০২ আগস্ট, ২০২২ ১৭:৫৪:০৮
প্রিন্টঅ-অ+

ইমরানের জীবনের দুর্যোগ যেন কাটছেই না। প্রধানমন্ত্রী হারানো পর পাঞ্চাব নির্বাচনে ছিল নানা নাটীকিয়তা। এবার পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) বিরুদ্ধে অবৈধভাবে অর্থ সংগ্রহের অভিযোগ তুলেছে দেশটির নির্বাচন কমিশন।


নির্বাচন কমিশনের এমন অভিযোগে বিপদে পড়তে পারেন ইমরান খান ও পিটিআই। এমন কি পাকিস্তানের রাজনীতিতে নিষিদ্ধ হতে পারে  তেহরিক-ই ইনসাফের (পিটিআই) । কারণ এভাবে তহবিল সংগ্রহের অভিযোগ খুবই গুরুতর।  দেশটির আইনানুযায়ী, কোন রাজনৈতিক দল বিদেশি তহবিল নেওয়া একেবারে নিষিদ্ধ। যদি পাকিস্তানের কোন রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে এভাবে তহবিল সংগ্রহের অভিযোগ উঠে ও তা যদি প্রমাণিত হয়। তাতে যে দল ও নেতারা রাজনীতি থেকে চিরতরে নিষিদ্ধ হতে পারেন। সেটা ইমরান খানের দল তেহরিক-ই ইনসাফের (পিটিআই) জন্য মোটেও মঙ্গলজনক নয়।


পাকিস্তানে নির্বাচন কমিশন বলছে, কমিশনের ৩ সদস্য বিশিষ্ট বিশেষ ট্রাইব্যুনাল কমিটির ইতিমধ্যে জানতে পেরেছে যে, ইমরান খানের রাজনৈতিক দল পিটিআই অতীতে নানা সময়ে বিদেশি প্রায় ৩৪ জনের কাছ থেকে তহবিল সংগ্রহ করেছিলেন। সেই অর্থ পাকিস্তানের বিভিন্ন ব্যাংকে প্রায় ১৩টি একাউন্টে জমা রাখা হয়েছে। এসকল অর্থের সুরুক্ষার জন্য পিটিআই দল থেকে যে হলফনামা প্রদান করেছেন তা সম্পূর্ণ ভুয়া।


ইমরানের দল পিটিআই থেকে বহিষ্কৃত নেতা আকবর এস. বাবর এ সকল অভিযোগ কমিশনের কাছে করেছিলেন। আকবরের অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে এসকল তথ্য খুজে পায় নির্বাচন কমিশনের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল।


কমিশনের লিখিত অভিযোগে এসব ব্যাংক হিসাব সম্পর্কে দলের ব্যাখ্যা চাওয়া হয়। পাশাপাশি কেন এসব তহবিল জব্দ হবে না, সে প্রশ্নও করা হয়।


বার্তাসংস্থা রয়টার্স এ বিষয়ে ইমরান খানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছিল, কিন্তু তাকে টেলিফোন বা অন্য কোনো যোগাযোগমাধ্যমে পাওয়া যায়নি। তবে মঙ্গলবার রাজধানী ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পিটিআইয়ের দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা ও পাকিস্তানের সাবেক তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরি। পাশপাশি, এ বিষয়ে পিটিআই আইনানুগ পথে চলবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।


ফাওয়াদ চৌধুরি বলেন, ‘আমাদের দল কোনো অনৈতিক বা অবৈধ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত নয়। ইলেকশন কমিশন যে অভিযোগটি উত্থাপন করা হয়েছে, তা ভিত্তিহীন এবং আদালতে এটিকে চ্যালেঞ্জ করব।’


এদিকে, ইসি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন  আকবর এস. বাবর। পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘সব অন্যায় জনগণের সামনে আসবে। সত্য কখনও চাপা থাকে না।’


 


আরো পড়ুন