শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
সত্য মুক্তি দেয়
আমিনুল ইসলাম কাসেমী
৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২১:০৯:২৩
প্রিন্টঅ-অ+

সত্য কথার দ্বারা মানুষ মুক্তি পায় । আর মিথ্যা কথা দ্বারা মানুষ ধ্বংস হয়। এটা হাদীসেরই কথা। “আস সিদকু ইউনজি ওয়াল কিজবা ইহুলিক” সত্য মুক্তি দেয় মিথ্যা মানুষকে ধ্বংস করে। এজন্য সদা সত্য কথা বলা চাই। মিথ্যা থেকে দুরে থাকতে হবে। কেননা মিথ্যা কথা দ্বারা মানুষের জীবনের উন্নতি সাধিত হয় না। বরং অবনতি ডেকে আনে। আস্তে আস্তে সে করুণ পরিণতিতে পড়ে যায়।


বড় পরিতাপের বিষয়, বর্তমান জামানায় যেন মানুষেরা মিথ্যা কথার প্রতিযোগিতা শুরু করেছে। সব জায়গাতে মিথ্যা কথার ছয়লাব। কে কত মিথ্যা বলতে পারে তা যেন পাল্লা শুরু করেছে। মিথ্যা কথার নতুন রূপ দেওয়া হয়েছে ‘চাপাবাজি’। মিথ্যা কথাকে চাপাবাজির নামে চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অনেকে এই চাপাবাজিকে যেন বৈধ মনে করছে।


সমাজে এখন এমন অবস্থা। কেউ যদি এই সত্য-মিথ্যার মিশ্রণ দিয়ে কেউ চাপাবাজি করে, অনেকে তাকে বাহবা দেয়। সে ভাল চাপা মারতে পারে, এজন্য তাকে অনেক জ্ঞানী মনে করে। সে ব্যক্তিকে সমীহ করে চলে। অথচ সে যা বলে সবই নির্জলা মিথ্যা। মিথ্যা কথা সাজিয়ে চমকগ্রদ ভাবে মানুষের সামনে উপস্থাপন করে। মানুষের চোখে-মুখে যেন ধাঁ-ধাঁ লাগিয়ে দেয়। যেটা অত্যন্ত নিন্দনীয়। এজন্য মিথ্যা কথা যতই সাজিয়ে গুছিয়ে বলুক। যতই তাতে রঙ ঢং লাগাক। সেটা কিন্তু শুদ্ধ হবে না। বরং মিথ্যা অপসৃত। মিথ্যা পরিত্যাজ্য। মিথ্যা কথা কখনো কল্যাণ বয়ে আনবে না। তাতে বিন্দু পরিমাণ সুযোগ নেই। তাই সকলের উচিত মিথ্যাকে পরিহার করা। সত্যকে গ্রহণ করা।


সমাজে আজ অশান্তির মূল কারণ হল মিথ্যা কথার ছয়লাব। সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে মিথ্যা প্রবেশ করেছে। একদম সর্বস্তরের মানুষের মাঝে মিথ্যা কথার অভ্যাস জন্মেছে। কোথাও যেন বাদ নেই। উপরের স্তর থেকে নিচের স্তর সকল জায়গায় মানুষ এখন মিথ্যা কথায় অভ্যস্ত। যার কারণে সমাজ থেকে শান্তি আবহ বিদায় নিয়েছে।


তাই আসুন! ভাই-বন্ধু,সকলেই মিথ্যা কথাকে পরিহার করি। সত্য কথার অভ্যাস গড়ে তুলি। মিথ্যা বলা কবিরা গোনাহ। বড়গোনাহ। এর দ্বারা মানুষকে বড় শাস্তি ভোগ কতে হবে। তাই এই বদ আমলকে আমাদের সবাইকে পরিত্যাগ করে সত্য কথা বলার চেষ্টা করতে হবে।


হাদীসে বলা হয়েছে, সত্য মুক্তি দেয় মিথ্যা ধ্বংস করে।  বাস্তব কথা। মানুষ সত্য কথায় অভ্যস্ত হয়ে গেলে সমাজে শান্তি ফিরে আসবে।সে সমাজে আর অশান্তির দাবানল জ্বলবেনা।  মানুষকে বিস্বাস করতে আর কারো দ্বিধা হবে না। এখন যেমন একজন আরেকজনকে বিশ^াস করতে চায় না। কেননা, মিথ্যা এমন  অক্টোপাসের মত জাপ্টে ধরেছে  যার থেকে ছুটতে পারছে না। এমন ভাবে বাসা বেঁধেছে। যার কারণে অবিস্বাসের  ঝুলি জমা হয়েছে। অনাস্থা সবখানে। অশান্তি আর অশান্তি। কিন্তু সত্য কথার প্রচলন, সত্য কথার অভ্যস্ততা মানুষের মাঝে হৃদ্যতা- আন্তরিকতা বৃদ্ধি পায়।   ভাই- ব্রাদার- বন্ধু- বান্ধব এর সম্পর্ক মধুর হয়। ভ্রাতৃত্ববোধ ফিরে আসে। সত্য কথার বিকল্প নেই। যে যেখানে থাকুন। সত্য কথা বলার অভ্যাস গড়ুন। মিথ্যাকে ত্যাগ করুন। সত্য কথার বরকতে এই সমাজে আবারও শান্তি ফিরে আসবে ইনশাআল্লাহ।


ইনসার্ট


বড় পরিতাপের বিষয়, বর্তমান জামানায় যেন মানুষেরা মিথ্যা কথার প্রতিযোগিতা শুরু করেছে। সব জায়গাতে মিথ্যা কথার ছয়লাব। কে কত মিথ্যা বলতে পারে তা যেন পাল্লা শুরু করেছে। মিথ্যা কথার নতুন রূপ দেওয়া হয়েছে ‘চাপাবাজি’। মিথ্যা কথাকে চাপাবাজির নামে চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অনেকে এই চাপাবাজিকে যেন বৈধ মনে করছে।


লেখক : মুহতামিম, নিজামিয়া মাদরাসা, গোয়ালন্দ, রাজবাড়ি


আমার বার্তা/ সি এইচ কে

আরো পড়ুন