শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
‘আইজিপি ব্যাজ’ পেলেন ৭৪২ পুলিশ সদস্য
নিজস্ব প্রতিবেদক
২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ১৮:১৫:৩৪
প্রিন্টঅ-অ+

‘দক্ষ পুলিশ, সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে বার্ষিক পুলিশ প্যারেডের মধ্য দিয়ে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০২২’ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


তিনি প্যারেডে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে পুলিশের বিভিন্ন কন্টিনজেন্ট ও পতাকাবাহী দলের সুশৃঙ্খল প্যারেড ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। প্যারেডে নয়টি দলের সঙ্গে অংশগ্রহণ করে পুলিশের ডগ স্কোয়াড, বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াট ও মোটরবাইক ইউনিট। রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে পুলিশের ১১টি ইউনিট প্যারেডের মধ্যে ৯টি ইউনিট প্যারেডে অংশ নেয়।


প্যারেডে অংশ নিতে ঢাকার বাইরে থেকে পুলিশের কোনো সদস্যকে আনা হয়নি। প্রথম বারের মতো প্যারেডে অংশ নিলো ডগ স্কোয়াড-সোয়াট। পাঁচ দিনব্যাপী (২৩-২৭ জানুয়ারি) পুলিশ সপ্তাহের প্রতিটি অনুষ্ঠান যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে হবে বলে আগেই জানিয়েছে পুলিশ সদরদপ্তর। পুলিশ সপ্তাহকে ঘিরে রাজধানীর প্রধান প্রধান সড়ক ও সড়ক দ্বীপকে বর্ণাঢ্য সাজে সাজানো হয়েছে। করোনার কারণে ২০২১ সালে পুলিশ সপ্তাহ অনুষ্ঠিত না হওয়ায় এ বছর ২০২০ ও ২০২১ সালের পদক একসঙ্গে দেওয়া হয়।


এদিকে কল্যাণকর কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২০২০ ও ২০২১ সালের জন্য ৭৪২ পুলিশ সদস্যকে পুলিশ ফোর্স এক্সেমপ্ল্যারি গুড সার্ভিসেস ব্যাজ (আইজিপি ব্যাজ) দেওয়া হয়েছে। প্রশংসনীয় ও ভালো কাজের জন্য দেওয়া এই ব্যাজ পুলিশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার। পুলিশ সদরদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, কর্মক্ষেত্রে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্বপালন, বাহিনীর মর্যাদা বেড়েছে এমন কার্যক্রমের পাশাপাশি বিভিন্ন ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রতি বছর পুলিশ সপ্তাহে আইজিপি ব্যাজে মনোনীত পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের এই পদক দেওয়া হয়। এছাড়া যারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা বিধান, জনসেবামূলক কার্যক্রম, মামলার রহস্য উদঘাটন, ভালো পুলিশিং, সরকারি ও ব্যক্তিগত কাজের মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি বাড়ানোসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে অবদান রাখেন তাদের এই পদকের জন্য নির্বাচিত করা হয়। 


২০২০ সালে ভালো কাজের জন্য পুলিশ সুপার থেকে কনস্টেবল সমমর্যাদার ৪০১ জনকে ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’, ‘ডি’, ‘ই’ ও ‘এফ’- এই ছয় ক্যাটাগরিতে ভাগ করে ব্যাজ দেওয়া হচ্ছে। আর ২০২১ সালে অবদানের জন্য ব্যাজ পেয়েছেন ৩৪১ পুলিশ। যেসব পুলিশ সদস্য আইজিপি ব্যাজ ২০২০ ও ২০২১ পেয়েছেন ব্যাজ পাওয়া কর্মকর্তাদের পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে এবার নিজ নিজ দপ্তরে পৌঁছে দেওয়া হবে এই ব্যাজ। ব্যাজ পদকের পাশাপাশি প্রত্যেককে আর্থিক পুরস্কারও দেয়া হচ্ছে। ২০১৯ সালের ভালো কাজের জন্য ৫৯৫ জন, ২০১৮ সালে ৫০১ জন, ২০১৭ সালে ৩২৯ জন ও ২০১৬ সালে ২৮৮ পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য ‘আইজিপি ব্যাজ’ পেয়েছিলেন।


এর আগে, গতকাল সকাল ১০টায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনস মাঠে বার্ষিক পুলিশ প্যারেডের মধ্য দিয়ে পুলিশ সপ্তাহ ২০২২ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি প্যারেডে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থেকে পুলিশের বিভিন্ন কন্টিনজেন্ট ও পতাকাবাহী দলের সুশৃঙ্খল ও দৃষ্টিনন্দন প্যারেড পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন। অসীম সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ কাজ, গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণের জন্য কর্মজীবনের সর্বোচ্চ স্বীকৃতি বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) ও রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) পেয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের ২৩০ সদস্য। গতকাল রোববার পুলিশ সপ্তাহের প্রথম দিনে পদকপ্রাপ্তদের মধ্যে ১৫-২০ জনকে পদক পরিয়ে দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বাকিদের কাছে পদক পৌঁছে দেওয়া হবে।


এছাড়া পুলিশে প্রথমবারের মতো পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত আইজিগণকে তাদের সহধর্মিনীদের উপস্থিতিতে র‌্যাংক ব্যাজে ভূষিত করেন। আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) দেশ ও জনগণের কল্যাণে আরও নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করার জন্য সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত আইজিগণের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। গতকাল বিকালে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের হল অব প্রাইডে পদোন্নতিপ্রাপ্ত সাত জন অতিরিক্ত আইজির র‌্যাংক ব্যাজ পরিধান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ আহবান জানান।


আইজিপি বলেন, পুলিশের কাছে মানুষের প্রত্যাশা আকাশচুম্বী। মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিজেদের অতিক্রম করে তাদেরকে সেবা দিতে হবে। তিনি বলেন, পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে আপনারা পুলিশের সর্বোচ্চ পদে পদোন্নতি পেয়েছেন। পুলিশ বাহিনী থেকে আপনাদের আর কিছু পাওয়ার নেই। এখন শুধু দেয়ার পালা। আপনারা এখন দেশ ও জনগণ এবং পুলিশ বাহিনীর জন্য কাজ করবেন। আইজিপি পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান। আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ এবং অতিরিক্ত আইজি (এঅ্যান্ডআই) ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরী পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের র‌্যাংক ব্যাজ পরিয়ে দেন।


পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা হলেন, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ডিআইজি আবু হাসান মুহম্মদ তারিক, বিপিএম-সেবা, পিবিআই'র ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার, বিপিএম (বার), পিপিএম-সেবা, কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের পরিচালক (ডিআইজি) ড. হাসান উল হায়দার, বিপিএম-সেবা, স্পেশাল ব্রাঞ্চের অতিরিক্ত আইজি (চলতি দায়িত্ব) মো. মনিরুল ইসলাম, বিপিএম (বার), পিপিম (বার), বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান, বিপিএম (বার), শিল্পাঞ্চল পুলিশের ডিআইজি মো. মাহাবুবর রহমান, বিপিএম, পিপিএম-সেবা ও ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি ব্যারিস্টার মো. হারুন অর রশিদ বিপিএম-সেবা। পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ দেশ ও জনগণের কল্যাণে যে কোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

আরো পড়ুন