শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
পদ্মা সেতু এলাকায় বাড়ছে দুর্ঘটনা, আশপাশে নেই হাসপাতাল
০৫ জুলাই, ২০২২ ১০:৪৪:০৩
প্রিন্টঅ-অ+


দ্মা সেতু চালুর পর সহজ হয়েছে রাজধানীর সাথে দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা। তবে এর সঙ্গে বেড়েছে সড়ক দুর্ঘটনাও। সেতু উদ্বোধনের পর এ পর্যন্ত বেশ কিছু দুর্ঘটনায় প্রাণহানিও হয়েছে। আহত হয়েছেন অনেকেই। কিন্তু সেতুর জাজিরা টোল প্লাজা থেকে অন্তত ১৫ কিলোমিটারের মধ্যে নেই কোন হাসপাতাল। কাছাকাছি কোন হাসপাতাল না থাকায় সহজে মেলে না প্রাথমিক চিকিৎসা।

এ পাড়ে কেউ দুর্ঘটনায় আহত হলে প্রায় ৩৫ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে তাদের নিতে হয় শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে। সেই সাথে ফরিদপুর কিংবা মাদারীপুরে চিকিৎসার জন্য যেতে হয় প্রায় দ্বিগুন পথ।

পদ্মা সেতুতে চলাচলকারীরা জানায়, সেতুর আশেপাশে হাসপাতাল না থাকার কারণে, অনেক সময় পথেই মৃত্যু হয় রোগীর। তাই সেতু এপার বা ওপার চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করা দরকার।

শরিয়তপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম মিজানুর রহমান বলেন, এখানে যদি কোন দুর্ঘটনা ঘটে তবে রোগীকে নিয়ে যেতে হবে জাজিরা থানার হাসপাতালে না হয় ঢাকা মেডিকেলে। আরও বড় সমস্যা হচ্ছে এখানে কোন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের ব্যবস্থাও নেই।

জাজিরা টোল প্লাজা থেকে সবচেয়ে কাছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। যদিও সেখানে রয়েছে লোকবল সংকট। সেখানকার আবাসিক চিকিৎসক নাসিত রুবায়েত হাসান বলেন, সামনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য আমাদের একজন অর্থপেডিক্সের কনসালটেন্ট এবং একজন সার্জারি কনসালটেন্ট পদায়ন করা অতি জরুরি। কারণ যে কোন দুর্ঘটনায় এ দুটি পদে চিকিৎসকের সেবা অনেক বেশি জরুরি।

দুর্ঘটনা রোধের পাশাপাশি পদ্মা সেতুর দক্ষিণ পাড়ে উন্নত হাসপাতাল নির্মাণের কথা বলছেন এ পথের যাত্রীরা।



 



আমার বার্তা -জন-০৫/০৭/২০২২


আরো পড়ুন