শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
আ.লীগ-বিএনপি মিটিংয়ে বসলে সমস্যার সমাধান সম্ভব: ইসি
১৮ জুলাই, ২০২২ ১৪:৩১:১৩
প্রিন্টঅ-অ+


রাজনৈতিক সংকট সুরাহা করতে এবার ক্ষমতাসীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশ জাতীয়তবাদী দল-বিএনপিকে এক টেবিলে বসে আলোচনার করার জন্য বললেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল। তিনি মনে করছেন, এক টেবিলে বসলে সমস্যার সমাধান হয়ে যেতো।

সোমবার (১৮ জুলাই) নির্বাচন ভবনে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের সঙ্গে সংলাপে বসে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, আমি যেটা মনে করি-সরকারি দল, তারা যদি বসতেন, বসে যদি পাঁচ/সাতটা মিটিং করতেন তাহলে সমস্যা সমাধান হয়ে যেতো। ভিন্ন ভিন্ন মঞ্চে মিটিং করছেন। একসঙ্গে কোনো মিটিং করেননি। আমাদের ফ্যামিলিতে কোনো সমস্যা হলে মিমাংসায় বসি। তখন মুরুব্বিদের ডাকা হয়। এটা তো প্রচলন আছে। ওখানে বসতে হয়।

তিনি বলেন, কিন্তু আমরা দেখতে পারছি না যে আওয়ামী লীগের সম্মানিত নেতারা, বিএনপির সম্মানিত নেতারা একসঙ্গে বসছেন। টেবিলে বসে আলোচনা করলে অনেক ভালো হতো। এবং একটা সুরাহা হতো।

সিইসি আরও বলেন, আমাদের জন্য যে প্রস্তাব ছিল আমাদের আইন-কানুন দেখে নিয়েছি। আমাদের দায়িত্ব পালন করবো। ভোটকেন্দ্রে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার বিষয়টা, ভোটকেন্দ্র যেন কারও দখলে চলে না যায়, সেটা আমরাও চেষ্টা করবো। আপনারাও চেষ্টা করবেন। নির্বাচন কমিশনের কাজ একটাই ভোটারকে ভোটদানের সুযোগ করে দেওয়া। এ কাজটা ইসিকে নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে একটা জিনিস দাঁড়িয়ে গেছে- যে করেই হোক জিততে হবে। কিন্তু হারতে মানতে হবে। ভারতে এতো বড় নির্বাচন হলো। সেখানে কংগ্রেসের ভরাডুবি হলো। কংগ্রেসের কাউকে শুনলাম না নির্বাচনটা ভালভাবে হয়নি। আমাদের ভোট দিতে দেওয়া হয়নি। ভারতে নির্বাচন কমিশনকে নিয়ে দোষারোপ করা সহজ হচ্ছে না। আমরা এই ধরণে ঐতিহ্য গড়ে তুলতে পারিনি।

দলের সংগঠন প্রধান আবু লায়েস মুন্নার নেতৃত্বে সংলাপে ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল অংশ নিয়েছে। এছাড়া নির্বাচন কমিশনাররাসহ ইসর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও এতে অংশ নিয়েছেন।

ইতিমধ্যে পাঁচটি দলের সঙ্গে সংলাপ সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। বাংলাদেশ মুসীলম লীগ নামের একটি দল সংলাপে আসেনি। আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিকভাবে সংলাপ করবে নির্বাচন কমিশন।



 



amar barta / john


আরো পড়ুন