শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
নগরে নেই গণপরিবহন, অ্যাপেও মিলছে না বাহন
নিজস্ব প্রতিবেদক
০৬ আগস্ট, ২০২২ ১৩:০৭:১৮
প্রিন্টঅ-অ+

জ্বালানী তেলের দাম গড়ে ৫০ শতাংশ বেড়ে যাওয়ার পর দেশের নগরগুলোতে গণপরিবহণ চলাচল সীমিত হয়ে গেছে। চলছে মূলত সিএনজি চালিত কিছু পরিবহন। চট্টগ্রাম, খুলনাসহ বেশ কয়েকটি বিভাগীয় ও জেলা শহরে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে আছে গণপরিবহন। রাজধানী ঢাকায় সকাল থেকেই তীব্র গণপরিবহন সঙ্কট। 


অফিসগামী যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে থেকেও তারা বাস পাচ্ছেন না। সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল বা রিকশায় চড়তে গেলে গুনতে হচ্ছে দ্বিগুণ ভাড়া। সকাল থেকে রাজধানীর উত্তরা, বনশ্রী, রামপুরা, বাড্ডা, মগবাজার এলাকা ঘুরে বাস সংকটের এ চিত্র দেখা যায়।


ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করেও পরিবহন মেলেনি সাধারণ যাত্রীরা। অনেক যাত্রীকে রাস্তার মোড়ে মোড়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা যায়। রামপুরা ব্রিজ এলাকায় শত শত মানুষকে বাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। বেশি দুর্ভোগে পড়েন নারীরা।


বাসে না উঠতে পেরে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় যাওয়ার চেষ্টা করেন সাধারণ যাত্রীরা, কিন্তু অটোরিকশায় প্রায় দ্বিগুণ ভাড়া চাওয়া হচ্ছে। জ্বালানির দাম বাড়ানোর সরকারি ঘোষণার পর শুক্রবার রাত থেকেই রাজধানীতে গণপরিবহন কমে গেছে বলে জানিয়েছেন রামপুরা জোনে দায়িত্বে থাকা সার্জেন্ট এনামুল হক শিপন। তিনি বলেন, ‘সকাল থেকে অনেক যাত্রী অপেক্ষা করেও বাস পাচ্ছেন না। বেশ কয়েকটি কোম্পানির বাস দেখা যাচ্ছে না। আবার কিছু কোম্পানির বাস চলছে, তবে সংখ্যায় কম।’


এদিকে সকাল থেকে গণপরিবহন সংকটের পাশাপাশি রাইড শেয়ারিং অ্যাপগুলোতেও চলছে এক রকমের হাহাকার। অ্যাপে নিয়মিত চলাচলকারীরা পাচ্ছেন না কোন বাহন। আর পেলেও দ্বিগুন ভাড়া হাঁকছেন রাইডাররা। তাদের দাবি গতকাল রাতে হঠাৎ তেলের দাম বাড়লেও অ্যাপগুলোতে আগের ভাড়া বহাল আছে। এটা তো তাদের জন্যও সমস্যা। এজন্য অনেকেই অ্যাপ বন্ধ করে কন্ট্রাক্টে যাচ্ছেন।


ভাড়া বেশি চাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে উবার চালক তানভীর ইসলাম বলেন, অ্যাপে আগের ভাড়াই দেখাচ্ছে। কিন্তু তেলের দাম তো বেড়েছে। ২৬০ টাকার মধ্যে ১০০ টাকার বেশি যাবে তেল খরচ, এরপর কোম্পানিকে ২৫% হিসেবে দিতে হবে ৬৫ টাকা। আমার আর টাকা থাকবে কই! 


তিনি আরও বলেন, তেলের দাম বাড়লেও অ্যাপে সার্চ করলে আগের ভাড়াই দেখাচ্ছে। এ কারণে আজ সকাল থেকে অ্যাপ বন্ধ করে দিয়েছে অনেকে। ১০০ বার সার্চ করেও বাইক পাওয়া যাচ্ছে না। সবাই কন্ট্রাক্টে যাচ্ছে। যদি আগের ভাড়া বহাল থাকে তাহলে বাইক চালকরা অ্যাপে যেতে পারবে না। 


সুনীল কুমার নামে আরেক চালক বলেন, তেলের দাম বাড়ল, কিন্তু ভাড়া বাড়ানো হলো না। তাহলে আমরা অ্যাপে কিভাবে চালাব, বলেন! 


তিনি বলেন, আগে শনির আখড়া থেকে গুলশান ২২০-২২৫ টাকা ছিল, তেলের দাম বাড়ানোর পরেও অ্যাপে যদি এই ভাড়াই আসে, তাহলে কীভাবে হবে! আমরা কেউ তো অ্যাপে চালাব না। যদি অ্যাপে ন্যায্য ভাড়া আসে তাহলে আমরা অ্যাপেই গাড়ি চালাব। আমাদেরও তো ইচ্ছে করে না ডেকে ডেকে যাত্রী তুলতে। কিন্তু অ্যাপ যদি আগের ভাড়াতেই চলে, তাহলে তো বিকল্প হিসেবে ডেকে ডেকে যাত্রী তুলতেই হবে। এখান (শনির আখড়া) থেকে গুলিস্তান অ্যাপে দেখাচ্ছে ৫০ টাকা, কন্ট্রাক্টে যাচ্ছি ১০০ টাকায়, তাহলে আমি অ্যাপ ব্যবহার করব কেন?


 

আরো পড়ুন