শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
‘বিএনপির পেছনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়েছে সরকার’
০৩ মার্চ, ২০২২ ১১:৫১:৫০
প্রিন্টঅ-অ+

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার জনগণের স্বোচ্চার কন্ঠে আতঙ্কিত। তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিজেদের চেতনায় সাজিয়ে হায়েনার মতো বিএনপির বিভিন্ন কর্মসূচিতে লেলিয়ে দিয়ে সেখান থেকে রক্ত ঝরাচ্ছে।


বুধবার দেশের বিভিন্ন জেলায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপির সমাবেশে পুলিশি হামলার ঘটনায় জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে। সম্মেলনে রিজভী বলেন, সরকার বিভিন্ন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকেও তাদের চেতনার রঙে রাঙিয়েছে। নির্বাচন কমিশন থেকে শুরু করে আইন আদালত সব জায়গায় নিজেদের লোক বসিয়ে সব কিছুকে করায়ত্ব করে গোটা জাতিকে তারা উপনিবেশ বানিয়েছে।


তিনি বলেন, আজকে যারা অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছেন, যারা গণতন্ত্র, নাগরিক অধিকার, ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে এ দেশের গণতন্ত্রকামী ভিন্নমতের মানুষদের নির্দয়ভাবে দমন করছে।  আজকে বিএনপির দেশব্যাপী কর্মসূচিতে ঠিক একই কায়দায় সরকার তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী এবং তাদের চেতনায় লালিত পুলিশ বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, এটা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়, এগুলো সুপরিকল্পিত।


আজকে ঢাকা জেলা থেকে শুরু করে মাগুরা, পটুয়াখালী, ঝালকাঠিসহ বিভিন্ন জেলায় পুলিশি তাÐব, সরকারি বাহিনী তাÐব চালিয়েছে। তারা যে বিএনপির সমাবেশকে পÐ করতে বিভিন্ন ধরনের অপকৌশল নিয়েছে সেই বিভৎস নারকীয় সন্ত্রাসের কাহিনী আমরা শুনতে পাচ্ছি। রিজভী বলেন, বিএনপির সমাবেশকে পÐ করার জন্য পুলিশ বাহিনী সরকারের কাছ থেকে পুরস্কার নিয়ে তাÐব চালাচ্ছে। সেই কারণেই তারা রাষ্ট্রীয় শক্তিকে ব্যবহার করে এইসব নারকীয় কাজগুলো করছে।


বিএনপির এই নেতা বলেন, বিদ্যুৎ, গ্যাস, চাল, ডাল তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম লাগামহীন ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে সাভারে ঢাকা আরিচা মহাসড়কে বিএনপির শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ অতির্কিত হামলা চালায়। এতে ১৫ জন নেতাকর্মী আহত হন। তন্মধ্যে খন্দকার শাহ মাইনুল ইসলাম বিল্টুকে বেধড়ক পিটিয়েছে পুলিশ। সেখান থেকে কয়েক জনকে আটক করা হয়েছে বলেও আমরা শুনতে পাচ্ছি। এছাড়াও পটুয়াখালীতে শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে অন্যতম জেলা মৎস্যজীবী দলের শাহ আলম তালুকদার, সদর উপজেলার বাপ্পী ও মন্টু মিয়া। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ, ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুন রায় চৌধুরী, মৎস্যজীবী দলের কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব মো. আব্দুর রহিম প্রমুখ।

আরো পড়ুন