শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সম্মেলন শুরু
এফ.এইচ সবুজ, লালবাগ
২৮ জুলাই, ২০২২ ১৮:১৫:৪১
প্রিন্টঅ-অ+

ঈদের পর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ২৪টি থানা ও ৭৫ ওয়ার্ডের সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফী। সেই প্রতিশ্রুতি মোতাবেক গতকাল ২৮ জুলাই বৃহস্পতিবার সকালে হাজারীবাগ থানার ১৪ ও ২২ নং ওয়ার্ডের মধ্যদিয়ে দক্ষিণের সম্মেলন শুরু হলো। এরপর ৩০ জুলাই কামরাঙ্গীরচর থানা এবং ৫৫, ৫৬ ও ৫৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তবে শোকের মাস আগস্টে কোনো থানা-ওয়ার্ডের সম্মেলন হবে না। পরের মাস সেপ্টেম্বরে আবারো পুরোদমে চলবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন।


করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজনীতির মাঠও চাঙ্গা হতে শুরু করেছে। এতে মহানগরের বিভিন্ন ইউনিটের কার্যক্রম আরো গতিশীল করা হচ্ছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের অন্তর্গত হাজারীবাগ থানার ১৪ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফী।


সম্মেলনে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে প্রধান অতিথি হিসেবে বাসভবন থেকে সংযুক্ত হয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রাখুন। আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ এবং সুশৃঙ্খল রাখতে দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বানও জানান। সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই- বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য হাস্যকর উল্লেখ করে তিনি বলেন, শেষ পর্যন্ত বিএনপি তাদের অস্তিত্ব ও দলকে রক্ষা করতেই নির্বাচনে অংশ নেবে। দেশ ভালো থাকলে বিএনপি নেতাদের মন কেন খারাপ হয়- জানতে চেয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণের প্রতি আস্থা রাখুন, নির্বাচনে অংশ নিন, নির্বাচনের মাধ্যমেই ক্ষমতার পরিবর্তন হবে। তিনি আরও বলেন, দেশে বিদ্যুৎ ও জ্বালানির অভাব নেই। যতটুকু অভাব আছে তা অচিরেই সমাধান হবে। আনুষ্ঠানিকভাবে থানা-ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করে সম্মেলনের মাধ্যমে থানা-ওয়ার্ডে দলের ত্যাগী-পরীক্ষিত নেতাদের জায়গা করে দিতে চায় মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ।


গত ২৩ জুলাই থানা-ওয়ার্ড সম্মেলন সফল করার লক্ষে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এডভোকেট কামরুল ইসলাম এম.পি। ২০১৬ সালের ১০ এপ্রিল ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগকে উত্তর ও দক্ষিণে বিভক্ত করে কমিটি ঘোষণা করা হয়। একই দিন দক্ষিণের ২৪টি থানা ও ৭৫টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষিত হওয়ার ৬ মাস পর ১২ সেপ্টেম্বর  ইউনিটের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হয়। কিন্তু ৬ বছরে থানা ও ওয়ার্ডে পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়নি। ৬৫০টি ইউনিটে হয়নি কোনো কমিটি। হানিফ-মায়ার আমলে যে কমিটি হয়েছিল, তা দিয়েই চলছিল এসব ইউনিট। ফলে নতুনরা নেতৃত্বে আসার সুযোগ পায়নি। দলের সক্রিয়কর্মী হয়েও পরিচয় দেয়ার মতো ছিল না তাদের কোনো পদ। নেতাকর্মীদের মধ্যে ছিল ক্ষোভ-অভিমান। সাংগঠনিকভাবে সংগঠনও খুব একটা শক্তিশালী না হওয়ায় বিগত কমিটিও সে রকম কোনো উদ্যোগ নিতে পারেনি। তবে ২০১৯ সালের ৩০ নভেম্বর সভাপতি  আবু আহমেদ মন্নাফী ও হুমায়ুন কবিরকে সাধারণ সম্পাদক করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এর ১ বছর পর ২০২০ সালের ১৯ নভেম্বর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। বর্তমানে দুই মহানগরীর দক্ষিণে থানার সংখ্যা ২৪টি, ওয়ার্ডের সংখ্যা ৭৫টি আর ইউনিট সংখ্যা ৬৫০টি।


হাজারীবাগ থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী মোহাম্মদ সেলিম আহমেদের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ হুমায়ুন কবির এবং সংসদ সদস্য নুরুল আমিন রুহুল প্রমুখ।

আরো পড়ুন