শিরোনাম :

  • বিদ্যুৎ স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে ‘৮ থেকে ১০ ঘণ্টা’ ঢাকায় বিদ্যুৎ স্বাভাবিক ‘রাত ৮টার মধ্যে, চট্টগ্রামে ৯টায়’দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুমআফগান ক্রিকেট বোর্ডের সিইওকে বিদায় দিল তালেবান
খালেদা জিয়ার জামিন হলে ৩ মাসে দেশ পরিবর্তন হবে-ডা. জাফরুল্লাহ
নগর প্রতিবেদক
১৭ আগস্ট, ২০২২ ২০:৩৪:২৭
প্রিন্টঅ-অ+

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জামিন হলে দেশ তিন মাসে পরিবর্তন হয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য ট্রাস্টি ও প্রতিষ্ঠাতা ডা.জাফরুল্লাহ চৌধুরী।  তিনি বলেন, ‘দেশে যদি শান্তি ফিরিয়ে আনতে হয়, সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হয়, মানুষের অধিকার নিশ্চিত করতে হয়, তাহলে খালেদা জিয়াকে আগে জামিন করতে হবে। খালেদা জিয়াকে ছাড়া দেশ চলবে না।’


বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে ‘জনতার অধিকার পার্টি’ (পিআরপি) আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নতুন এ দলকে অভিনন্দন জানান জাফরুল্লাহ চৌধুরী।


খালেদা জিয়ার জামিনের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বিনা বিচারে, অন্যায়ভাবে খালেদা জিয়ার আটকে রেখেছেন। যে টাকা চুরি করে নাই, এক একাউন্ট থেকে আরেক একাউন্টে রাখার জন্য জেল খাটাতে হয়। এ জন্য তাকে আটকে রাখা হয়েছে।’


তিনি বলেন, ‘সোজা কথায় বলতে চাই সুশাসন দরকার। জবাবদিহি দরকার। আর এর জন্য দরকার নিরপেক্ষ নির্বাচন। এ সরকারের অধীনে নিরেপক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘আজ দেশের মানুষ কত কষ্টে আছে। লাখ-লাখ ফুটপাতের ব্যবসায়ী কষ্টে আছেন। তাদের নিয়ে কেউ ভাবে না।’


তিনি বলেন, ‘বিরোধীদলকে প্রধানমন্ত্রী বললেন চা খেয়ে যান। তারপরই ভোলায় পুলিশের গুলিতে দুজন মারা গেলেন। তার মানে উনার (প্রধানমন্ত্রীর) হাতে ক্ষমতা নাই। ক্ষমতা অন্যদের হাতে। চাবিকাঠি অন্য জায়গায়।’


‘পুলিশের যেখানে লাঠিচার্জ করার কথা সেখানে গুলি করছে। তার কারণ হলো কোনো নিয়মের তোয়াক্কা করছে না। একটা জায়গা গুলি করতে হলে ম্যাজিস্ট্রেটের লিখিত অনুমতি লাগত। এখন তা নেই। আজকে সেই ক্ষমতা এসপির হাতে দিয়ে দেয়া হয়েছে।’


প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে এ প্রতিষ্ঠাতা বলেন,‘সুষ্ঠু নির্বাচনে আসতে এত ভয় পাচ্ছেন কেন? দিয়ে দেখেন নাহ? চলে গেলে তো ভালোই। জিতে গেলে চরিত্রের পরিবর্তন করলেন। আর কত দিন, অনেক দিন করেছেন।’


সরকারপ্রধানের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনি সমুদ্র জয় করেছেন, সেখানে এক্সপ্লোর করছেন না। বাপেক্স, পেট্রোবাংলাও পারছে না। আপনি জীবনের ভয়ে ভীত আছেন।


তিনি বলেন, আজকে বিদ্যুতের সংকট। নেপালে এবং ভারতে জলবিদ্যুৎ উৎপাদন করা যেত। কিন্তু ভারত করিডোরটুকু দেয়নি। তারা নাকি বন্ধু রাষ্ট্র। বঙ্গবন্ধু ভারতের চরিত্র জানতেন। সোজা কথায় বলতে চাই সুশাসন দরকার। জবাবদিহিতা দরকার। আর এর জন্য দরকার নিরপেক্ষ নির্বাচন। এ সরকারের অধীনে নিরেপক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়।


জনশুমারি ও গৃহগণনার সমালোচনা করে জাফরুল্লাহ বলেন, আমাকেও আদমশুমারিতে ধরে নাই। আমাদের বাড়িতেও লোক যায়নি। কলমের এক খোঁচায় সাড়ে ১৮ কোটি থেকে জনসংখ্যা সাড়ে ১৬ কোটি হয়ে গেল।


তিনি বলেন, আজকে দেশের মানুষ কত কষ্টে আছে। ফুটপাতের লাখ লাখ ব্যবসায়ী কষ্টে আছেন। ম্যাজিস্ট্রেটরা শুধু গরীবের ওপর উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করছে।


আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, উনাদের প্রত্যেকটা অংকে ভুল আছে। মিথ্যাচার আছে। কয়দিন আগে অর্থমন্ত্রী বললেন, আমরা আইএমএফের কাছে যাব না। কিন্তু পরে ঠিকই হাতে পায়ে ধরলেন।


নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহামুদুর রহমান মান্না বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, `সরকারের মন্ত্রীদের বাসায় কোনো লোডশেডিং নেই। এক মুহূর্তের জন্য তারা আরাম ছাড়তে রাজি নয়। তারা কি এমন লাটসাহেব হয়ে গেছেন। যেখানে দেশের মানুষ লোডশেডিংয়ে কষ্ট পাচ্ছে, সেখানে তারা ১-২ ঘণ্টা লোডশেডিং সহ্য করতে পারছেন না।‘আজকে নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে লাভ নেই, লড়াই করতে হবে। যতগুলো দল পারেন একত্রিত হয়ে এক মঞ্চে না হোক অন্তত যুগপৎ অভিন্ন আন্দোলন করতে হবে।’বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে কীভাবে আন্দোলনটা করা যায় তার জন্য গনতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে সকল বিরোধী রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলাপ হবে বলেও জানান মাহামুদুর রহমান মান্না।


আত্মপ্রকাশ হওয়া জনতার অধিকার পার্টির ৭ টি লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন নতুন দলটির চেয়ারম্যান মো. তরিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘জনতার অধিকার পার্টি জাতির সঙ্গে বেইমানি করবে না। দেশের মানুষের জন্য কাজ করে যাবে। পরে অতিথিরা নতুন এ রাজনৈতিক দলের লোগো উন্মোচন করেন।


জনতার অধিকার পার্টির মহাসচিব মোশাররফ হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্ঠা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, গণশক্তি আন্দোলনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল্লাহ মো. তাহের,  দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আরো পড়ুন