শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজে লড়াইটা হবে ‘দুই দলের ব্যাটিংয়ের’
১০ মে, ২০২২ ১১:৫২:০৯
প্রিন্টঅ-অ+

কদিন আগেও বাংলাদেশের বয়সভিত্তিক দলের দায়িত্ব ছিল তার কাঁধে। বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে বড় যে অর্জন, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়, তার মূল কারিগর ছিলেন নাভিদ নেওয়াজ নামের এক শ্রীলঙ্কান। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ যুব দলের দায়িত্ব ছেড়ে শ্রীলঙ্কা মূল দলের সহকারী কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন নাভিদ। লঙ্কানদের দায়িত্ব পেয়ে প্রথম কাজ নিয়ে এসেছেন বাংলাদেশে। ফেরাটা উপভোগ করছেন বেশ। তবে মাঠের লড়াইয়ে নাভিদ দুই ম্যাচের এই টেস্ট সিরিজে কঠিন লড়াইয়ের আঁচই পাচ্ছেন।


সোমবার মিরপুরে শ্রীলঙ্কা দলের অনুশীলন শেষে সংবাদমধ্যমকে নাভিদ বলেন, ‘আমাদের দলটা ভালো, তরুণদের সঙ্গে অভিজ্ঞরা আছে। হার-জিত নির্ভর করে নির্দিষ্ট দিনে কেমন খেলছেন তার ওপর। আমরা ইতিবাচক ও আত্মবিশ্বাসী, খেলোয়াড়রা মাঠে সেরাটা দিতে পারবে। কন্ডিশন যেমনই হোক, খেলতে তো হবে। হয়তো কিছু প্রভাব আছে, তবে পুরোটা নয়। কোচ হিসেবে আমাদের কাজ খেলোয়াড়দের প্রস্তুত করা। যাতে তারা আন্তর্জাতিক ম্যাচে পারফর্ম করতে পারে।’


কাজের সূত্রে দীর্ঘদিন বাংলাদেশে কাটিয়েছেন নাভিদ। মাহমুদুল হাসান জয়, শরিফুল ইসলামরা তারই ছাত্র। চেনা আছে মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিমদেরও। স্বাগতিকদের শক্তি-দুর্বলতা অজানা নয় লঙ্কান কোচের। সব বিবেচনায় এই সিরিজটি মূলত ব্যাটসম্যানদের লড়াই হবে বলে মনে করছেন তিনি। নাভিদের ভাষায়, ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিতে পারেন দুই দলের ব্যাটসম্যানরা।


নাভিদ বলছিলেন, ‘কঠিন সিরিজ হবে। মূলত দুই দলের ব্যাটিংয়ের লড়াই হবে—বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার। বোলিং গ্রæপ দুই দলেরই অভিজ্ঞ। তবে দুই দলের ব্যাটিংই এগিয়ে। দুই দলের ব্যাটিংয়ের দিকে তাকালে দেখবেন, প্রায় একই। বাংলাদেশেও কিছু তরুণ আছে, বোলিংয়ে। সব মিলিয়ে দুই দলই প্রায় সমান। দেখার মতো একটা সিরিজ হবে।’


সঙ্গে যোগ করেন নাভিদ, ‘সফরকারী হিসেবে আমরা অতীতের ওপরই নির্ভর করব। আমাদের কিছু খেলোয়াড় আছে যারা এ কন্ডিশনের সঙ্গে অভ্যস্ত, কয়েকজন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলেছে। বিপিএলেও। কেউ কেউ সর্বশেষ টেস্ট সিরিজে খেলেছে। সবাই আশাবাদী, সামনে যা-ই আসুক না কেন। চট্টগ্রামে গিয়ে পিচ দেখে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করব।’

আরো পড়ুন