শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
খালেদের ৫ উইকেট, উইন্ডিজের ১৭৪ রানের লিড
স্পোর্টস ডেস্ক :
২৭ জুন, ২০২২ ০১:০১:১৩
প্রিন্টঅ-অ+

লাঞ্চের পর খুব একটা সময় নেয়নি বাংলাদেশ। ১০.৩ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের শেষ ৩ উইকেট তুলে নিয়েছে। তারপরও ক্যারিবিয়ানদের লিড কম দূর যায়নি। সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিনে প্রথম ইনিংসে ৪০৬ রানে অলআউট হয়ে স্বাগতিকরা নিয়েছে ১৭৪ রানের লিড।


অ্যান্টিগার প্রথম টেস্ট হারায় এই টেস্টে জয় পাওয়াটা খুব জরুরি বাংলাদেশের। যদিও সিরিজ বাঁচানোর মিশনে কঠিন অবস্থানে সফরকারীরা। ক্যারিবিয়ানদের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে, বিশেষ করে কাইল মায়ার্সের অসাধারণ পারফরম্যান্সের সেন্ট লুসিয়া টেস্টে চালকের আসনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশকে প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে গুটিয়ে দিয়ে নিজেরা ব্যাট হাতে শাসন করেছে। যেখানে মায়ার্স খেলেছেন ১৪৬ রানের অসাধারণ ইনিংস।


তারপরও তৃতীয় দিনে বাংলাদেশের বোলাররা দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়ানোয় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দ্রুত অলআউট করা গেছে। যেখানে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রেখেছেন খালেদ আহমেদ। টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবার ৫ উইকেটের দেখা পেয়েছেন এই পেসার। শেষ ব্যাটার হিসেবে জেডেন সেলসকে তুলে নিয়ে এই মাইলফলকে পৌঁছান খালেদ। ৩১.৩ ওভারে ১০৬ রান খরচায় তার শিকার ৫ উইকেট। ‍মেহেদী হাসান মিরাজ ৩৯ ওভারে ৯১ রান দিয়ে পেয়েছেন ৩ উইকেট। আর শরিফুল ইসলাম ১৯ ওভারে ৭৬ রান খরচায় নিয়েছেন ২ উইকেট।


গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন কাইল মায়ার্স। কিছুতেই তাকে দমানো যাচ্ছিল না। দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশকে ভোগানো এই ব্যাটার তৃতীয় দিনেও ছড়ি ঘোরাচ্ছিলেন। অবশেষে মায়ার্সকে থামানো গেছে। খালেদ আহমেদের বলে সহজ ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিয়েছেন বাঁহাতি ব্যাটার।


এতদিন মায়ার্সের টেস্ট ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরি ছিল একটি। সেঞ্চুরি নয় আসলে, ডাবল সেঞ্চুরি। গত বছর বাংলাদেশের বিপক্ষেই খেলেছিলেন অসাধারণ এক ইনিংস, যাতে জন্ম দিয়েছিলেন অবিশ্বাস্য এক ঘটনার। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রাম টেস্টে বাংলাদেশের ৩৯৫ রানের লক্ষ্যও ওয়েস্ট ইন্ডিজ টপকে গিয়েছিল মায়ার্সের অপরাজিত ২১০ রানের চোখ জুড়ানো ইনিংসে। সেই মায়ার্স আবারও তিন অঙ্কের দেখা পেয়েছেন বাংলাদেশের বিপক্ষেই।


আগের দিনই টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পাওয়া এই ব্যাটার তৃতীয় দিনে হাঁটছিলেন দেড়শর পথে। একই সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ বাড়িয়ে নিচ্ছিলেন তিনি। একপ্রান্ত আগলে রেখে বাংলাদেশের বোলারদের কঠিন পরীক্ষা নিয়ে যাচ্ছিলেন। অবশেষে তাকে আউট করেছেন খালেদ। এই পেসারের স্লোয়ারে খেই হারিয়ে শরিফুল ইসলামকে সহজ ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন তিনি। যাওয়ার আগে খেলে যান ১৪৬ রানের ঝলমলে ইনিংস। ২০৮ বলের ইনিংসে মেরেছেন ১৮ বাউন্ডারির সঙ্গে ২ ছক্কা।


দ্বিতীয় দিনের শেষ দুই সেশনে খুব ভুগেছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটারদের দৃঢ়তায় মাত্র একবারই উইকেট উদযাপনের সুযোগ পেয়েছিল সাকিব আল হাসানরা। তৃতীয় দিনের শুরুতে ম্যাচে ফেরার মিশনে নামে বাংলাদেশ। এই যাত্রায় সাফল্যও আসে। তবে বৃষ্টির বাগড়ায় মোমেন্টাম ধরে রাখার সুযোগ হারায়। সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনের বেশিরভাগ সময় গেছে বৃষ্টির পেটে।


দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশন দুর্দান্ত কাটলেও পরের দুই সেশন ছিল শুধুই হতাশার। লাঞ্চের পর ১ উইকেট নিয়ে দিন শেষ করতে হয় বাংলাদেশের। সফরকারীদের হতাশা উপহার দেওয়া মায়ার্স ও জোশুয়া দা সিলভা শুরু করেন তৃতীয় দিনের খেলা। আগের দিন ভোগানো জোশুয়া নতুন দিনে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। লিটন দাসের ঘূর্ণিতে শুরুতেই ফিরে যান তিনি। তার ১১৫ বলের প্রতিরোধ শেষ হয় এলবিডব্লিউতে। ফেরার আগে খেলে যান ২৯ রানের ইনিংস ও মায়ার্সের সঙ্গে গড়ে যান ৯৬ রানের জুটি।


এই জুটি ভাঙার পর ক্রিজে আসেন আলজারি জোসেফ। তাকে থিতু হতে দেননি খালেদ আহমেদ। লিটন দাসের হাতে ক্যাচ বানিয়ে জোসেফকে ফেরান ৬ রানে। দ্রুত ২ উইকেট তুলে নিয়ে লড়াইয়ে ফেরে বাংলাদেশ। দলের মধ্যে উদ্দীপনা দেখা যায়। তবে বৃষ্টি সেই ধারা থাকতে দেয়নি। প্রথম সেশনে ৫০ মিনিটের মতো খেলার পর বৃষ্টি শুরু হয়। সময় গড়িয়ে গেলেও আবহাওয়ার উন্নতি হয় না। এর মধ্যে চলে আসে লাঞ্চের সময়।

আরো পড়ুন