শিরোনাম :

  • আনোয়ার ইব্রাহিম মালয়েশিয়া সরকারের পতন ঘটাতে যাচ্ছেন? চীন জিনজিয়াংয়ে কয়েক হাজার মসজিদ ধ্বংসের বিষয়ে যা বলল আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাতে নিহত ২৩ গাজী মাজহারুল আনোয়ারের গীতিকবিতায় কণ্ঠ দেবেন আসিফ আকবর
ছিনতাইয়ে ব্যর্থ হয়ে চার শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত
কক্সবাজার প্রতিনিধি :
২৩ মার্চ, ২০২০ ১২:৩৩:৩২
প্রিন্টঅ-অ+


কক্সবাজার শহরের লাইট হাউস পাড়ায় ছিনতাই করতে ব্যর্থ হয়ে চার শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত করেছে চিহ্নিত অপরাধীরা। শহরের লাইট হাউস পাড়া ছত্তারঘোনা সড়কে রোববার দিনগত রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ছুরিকাহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

আহতরা হলো, কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের লাইট হাউস পাড়ার আনোয়ার হোসেনের ছেলে স্কুল শিক্ষার্থী কামরুল হাসান নয়ন (১৬), আজিজুর রহমানের ছেলে কলেজ শিক্ষার্থী রাহাত হোসেন (১৮), সালামত খানের ছেলে কলেজ শিক্ষার্থী শাহরিয়াজ খান ইমন (২২) ও মোহাম্মদ আলমের ছেলে স্কুল শিক্ষার্থী মো. আসিফ (১৬)।

কামরুল হাসানের মামা জহির আলম জানান, আহতরাসহ এলাকার বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বিকেলে এলাকার মাঠে ক্রিকেট খেলে। এতে আসিফ হাতে আঘাত পায়। ছত্তারঘোনায় ময়না নামে এক নারী হাতে-পায়ের প্রাথমিক আঘাতে সনাতনী পদ্ধতিতে চিকিৎসা করেন। হাতের আঘাত সারাতে আসিফকে নিয়ে কামরুল হাসান ময়নার বাড়িতে যায়। এ সময় রাহাত এবং ইমনও আসিফের চিকিৎসা দেখতে ময়নার বাড়িতে যায়।

চিকিৎসা করে বাড়ি ফিরছিলো তারা। ছত্তারঘোনা এবং লাইটহাউসের মাঝামাঝি অন্ধকারাছন্ন এলাকায় পৌঁছালে তাদের গতি রোধ করে পাঁচ যুবক। তারা ছুরি ধরে আসিফ, কামরুল, রাহাত ও ইমনের কাছে যা আছে তা বের করতে বলে। স্থানীয় হওয়ায় কামরুলরা ছিনতাইকারীদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটি শুরু করে। এরপরই তাদের মাঝে হাতাহাতি হয়। এক পর্যায়ে আসিফ এবং রাহাতকে বেধড়ক মার শুরু করে ছিনতাইকারিরা।

এ সময় তাদের চিৎকার শুনে পাশের লোকজন এগিয়ে আসছে দেখে শিক্ষার্থীদের ছুরিকাঘাত করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। ছুরিকাঘাতে জখম হওয়া চারজনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যান।

তিনি আরো বলেন, হামলাকারীরা চিহ্নিত অপরাধী ও ছিনতাইকারী। তারা এলাকার হাত কাটা সৈয়দ বাহিনীর সক্রিয় সদস্য। তাই এদের সাত সদস্য হাতকাটা সৈয়দের ছোট ভাই মনজুর, তার সহযোগী আজিজ, আবদু শুক্কুর, আয়াছ, আবদুল্লাহ, বার্মায়া পুতু ও বীচ শুক্কুরের নাম উল্লেখ করে এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, সন্ত্রাসী ছত্তার খুন হওয়ার পর থেকে হাতকাটা সৈয়দ বাহিনী এখানে অপরাধের স্বর্গরাজ্য করেছে। রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের এনে অপরাধ কর্ম করায় তারা।

কক্সবাজার সদর থানার ওসি (অপারেশন) মাসুম খান জানান, একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমরা তা গুরত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখে দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি।



আমার বার্তা/২৩ মার্চ ২০২০/জহির


আরো পড়ুন