শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
ইমামের বিরুদ্ধে আপত্তিকর ও অশ্লীল প্রস্তাবের অভিযোগ
মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি
০৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৩:০৯:১৫
প্রিন্টঅ-অ+


মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলার মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের পূর্ব মাকহাটি এলাকার বাইতুল মামুর জামে মসজিদের ইমাম মোস্তফা আল মামুনের (কবিরাজ)  বিরুদ্ধে আপত্তিকর ও অশ্লীল প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন এক নারী। গত শনিবার বাইতুল মামুর জামে মসজিদ ইমামের কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। মহিলা বলেন, স্বামীর ব্যাপারে চিকিৎসা চাইতে গেলে ইমাম আমাকে তার কাছে থাকার জন্য  প্রস্তাব দেয়।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ১৫ বছর ধরে বাইতুল মামুর জামে মসজিদে ইমামতি করে আসছে মোস্তফা আল মামুন। এর পাশাপাশি সে মানুষের বিভিন্ন রোগের জন্য কবিরাজি চিকিৎসা করতো। প্রতিদিন তার এখানে অনেক রোগীর আসা যাওয়া ছিলো। মেয়ে রোগীদের আনাগোনা বেশি ছিলো তার এখানে। মসজিদের পাশে তার কক্ষে মানুষের বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করতো। দু’এক বার তার বিরুদ্ধে নারীদের চিকিৎসা দেওয়ার নামে আপত্তিকর ও অশ্লীল প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। কিন্ত এর কর্ণপাত কেউ করেনি। গত শনিবার  বড় মোল্লাকান্দি এলাকার এক নারী তার কাছ থেকে স্বামীর জন্য  চিকিৎসা নিতে ইমামের কক্ষে গেলে  তাকে আপত্তিকর প্রস্তাব দেয়। পরে ওই মহিলা এলাকার মানুষদের জানালে এলাকায় সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এছাড়া এই ঘটনা নিয়ে এলাকার মধ্যে দুটি পক্ষ সৃষ্টি হয়। মোস্তফা আল মামুন  কবিরাজের বিরুদ্ধে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগও রয়েছে।

ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, আমি দুই সন্তানের জননী। আমার স্বামীর ইচ্ছে আরো সন্তান নিতে, কিন্ত আমি আর সন্তান নিতে চাইনা। আমার দুই ছেলেকে মাদ্রাসায় দিয়ে ইমামের কাছে গিয়েছিলাম চিকিৎসা নেওয়ার জন্য। তখন মাগরিম নামাজের ওয়াক্ত। হুজুর আমাকে তার সোফায় বসতে বলে ফোনের মধ্যে অন্য এক নারীর সাথে খারাপ বাসায় কথাবার্তা বলতে লাগেন। পরে আমি হুজুরের সাথে আমার স্বামীর ব্যাপারে কথা বলি। তিনি আমাকে তার সাথে  আধা ঘন্টা একান্তভাবে থাকার জন্য বলে। আমি রাজি না হলে সে আমার স্বামীর জন্য কোনো ঔষধ না দিয়ে আমাকে দমক দিয়ে বের করে দেয়। এ ঘটনা আমি এলাকার কয়েক জনকে জানিয়েছি।  

এই বিষয়ে ইমাম মোস্তফা আল মামুন জানান, এই নারী আমার কাছে তার স্বামীর জন্য তিন বার এসেছিল। স্বামী যাতে নিজের বাড়িতে না থেকে  শ্বশুর বাড়িতে থাকে। আমি এই সমস্যার জন্য কোনো ঔষধ না দিলে সে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালায়।


আরো পড়ুন