শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
তারের জঞ্জাল মুক্ত করতে সমন্বয়ের তাগিদ
১৮ এপ্রিল, ২০২২ ১৪:৩১:০২
প্রিন্টঅ-অ+

রাজধানীসহ দেশের বিভাগীয় ও জেলা শহরের তারের জঞ্জাল দূর করতে বিদ্যুৎ ও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের সেবাদাতাদের মধ্যে সমন্বয়ের তাগিদ দিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন।


সংগঠনটি বলছে, তারের জঞ্জাল নিরসনে সিটি কর্পোরেশন ও বিদ্যুৎ বিভাগ প্রায়ই কাটাকাটি করে। এর ফলে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা বিপাকে পড়ে। তাই চলমান ডিপিডিসির আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবলের কাজ শুরু হওয়া বিদ্যুৎ বিভাগ ও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের মাধ্যমে ইকোসিস্টেম বা দ্রæত সমন্বয় জরুরি।


গতকাল রোববার বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের পাঠানো এক বিবৃতিতে এ কথা জানান সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ।


বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, ইতিমধ্যে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা এক কোটি ছাড়িয়ে গেছে, শিল্প-কারখানা, ব্যাংক, অফিস-আদালত সবই চলে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ভিত্তিক।


ব্রডব্যান্ডের ব্যান্ডউইথের ব্যবহার ২ হাজার জিবিপিএসের বেশি। এখনো দেশের ৯০ শতাংশ নাগরিক ইন্টারনেট সেবার সেবার বাইরে। তারপরও তারের জঞ্জালে নাকাল নগরবাসী। টেকসই ও দীর্ঘমেয়াদি সঠিক পরিকল্পনার অভাবে তারের যানজট নিরসন করা এখনো সম্ভব হচ্ছে না। তবে বর্তমানে রাজধানীর তার মুক্ত করার যে বিশাল কর্মযজ্ঞ চালাচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগ, তার সাথে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবাকে সমন্বয় বা ইকোসিস্টেম করা গেলে তারের জঞ্জাল নিরসন করা অনেকটাই সম্ভব বলে আমরা মনে করি।


মহিউদ্দিন জানান, ডিপিডিসি সূত্রে জানা গেছে অধিকতর নির্ভরযোগ্য ও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে ‘পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট আন্ডার ডিপিডিসি এরিয়া’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বঙ্গভবন থেকে জাহাঙ্গীরগেট এবং গাবতলী থেকে আজিমপুর পর্যন্ত বিদ্যমান ওভারহেড বিদ্যুৎ বিতরণ লাইনকে আন্ডারগ্রাউন্ডে লাইনে রূপান্তর করা হবে।


এর অংশ হিসেবে বঙ্গভবন থেকে জাহাঙ্গীরগেট পর্যন্ত১৯ কিলোমিটার প্রধান সড়কের দুই পাশে এবং গাবতলী থেকে আজিমপুর পযন্ত ১০ কিলোমিটার প্রধান সড়কের দুই পাশে ওভারহেড বিতরণ নেটওয়ার্ক আন্ডারগ্রাউন্ড বিতরণ নেটওয়ার্কে রূপান্তরের জন্য কিয়োস্ক ট্রান্সফরমার, রিং মেইন ইউনিট (আরএমইউ), লো টেনসন ডিস্ট্রিবিউশন বপ (এলটিবি) স্থাপন করা হবে।


জাহাঙ্গীর গেট থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত ২২টি আরএমইউ, ১৯টি এলটিবি এবং ৪টি কিয়োস্ক ট্রান্সফরমার স্থাপন করা হবে। এই প্রকল্পের সাথে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট কে যুক্ত করা অত্যন্ত জরুরী। আর যদি তা না করা যায় তাহলে হয়তো রাজধানীর থেকে বিদ্যুতের তার অপসারণ করা গেলেও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের আরো জঞ্জাল সৃষ্টি করবে। সেই সাথে গ্রাহক ভোগান্তি অনেক বৃদ্ধি পাবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে ক্ষুদ্র আইএসপি বিনিয়োগকারীরাও। আমরা মনে করি বিদ্যুৎ বিভাগ ও বিটিআরসি সেইসাথে আইএসপি অপারেটরদের দ্রæত সমন্বয় করা হোক। গ্রাহক স্বার্থ বিবেচনায় নিয়ে এবং তারবিহীন ঢাকা নগরী গড়ে তুলতে একটি যুগোপযোগী ইকোসিস্টেম গড়ে তোলা হোক।


রাজধানীর সড়ক থেকে শুরু করে অলিগলি সব জায়গায় ঢাকার বিভিন্ন সংস্থার ক্যাবল। ডিশ ক্যাবল, ইন্টারনেট ক্যাবল ও বিদ্যুতের তার সবমিলিয়ে এ নগরী যেন এক তারের জঞ্জাল। কোথাও ফুটপাত বা রাস্তায় নেমে এসেছে তারের লাইন। বৃষ্টিতে এসব তার পানির সংস্পর্শে আসার পর ঘটছে দুর্ঘটনা। জঞ্জালের মতো এসব তার নষ্ট করছে ঢাকার সৌন্দর্যও। কিন্তু এসব তার অপসারণে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কোনো পদক্ষেপই কাজে আসছে না।


যদিও রাজধানীতে ইন্টারনেট আর ক্যাবল টিভির তার মাটির নিচ দিয়ে সরবরাহের কথা, কিন্তু তা মানছেন না ব্যবসায়ীরা। ফলে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে সাধারণ পথচারী। ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক মো. রমিজ উদ্দিন সরকার বলেন, আমরা কোনো পুল বাইরে রাখব না, সব অ্যান্ডারগ্রাউন্ডে নিয়ে যাব।’

আরো পড়ুন