শিরোনাম :

  • জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২ আইসিসির সেরা হওয়ার দৌড়ে বাংলাদেশের নাসুম
অ্যাপ ভিত্তিক মোটরসাইকেলেও ভোগান্তি সীমাহীন
অপূর্ব চক্রবর্তী
০৬ আগস্ট, ২০২২ ১৫:০৩:৪১
প্রিন্টঅ-অ+

জ্বালানীর দাম বাড়ার খবরে পাম্পে গিয়ে মেলেনি প্রয়োজনীয় তেল। তার ওপর অ্যাপেও ভাড়া সমন্বয় করে আপডেট হয়নি। এসবের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে গণপরিবহনের সঙ্গট। সব মিলিয়ে রাজধানীতে অ্যাপ ভিত্তিক মোটরসাইকেল নিয়ে চলাচলে ছিল নগরবাসীর সীমাহীন ভোগান্তি।


শুক্রবার রাতে দেশে জ্বালানী তেলের দাম বাড়ানোর খবরেই তোলপাড় শুরু হয়। পাম্পগুলোতে ছিল দীর্ঘ লাইন। তার ওপর সুযোগ বুঝে অধিকাংশ পাম্পই বন্ধ করে দেয়া হয়। ভোগান্তিতে পড়েন যানবাহন মালিক-চালকরা। বিশেষকরে মোটরসাইকেল চালকরা পড়েন বেকায়দায়। কেউ রিজার্ভ করতে আবার কেউ প্রয়োজনের জন্য তেল না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। রাজধানীতে বেশ কয়েকটি জায়গায় সড়ক অবরোধ করার ঘটনাও ঘটে।


শনিবার সকাল থেকে নগরীতে গণপরিবহন সঙ্গট দেখা দেয়। এ সময় সাধারণ যাত্রীরাও পড়েন ভোগান্তিতে। বাসের পাশাপাশি অ্যাপ ভিত্তিক মোটরসাইকেল ব্যবহারকারীরাও পুরনো দরে রাইড শেয়ারে রাজি হয়নি। অধিকাংশই অ্যাপের বদলে চুক্তিভিত্তিক ভাবে ভাড়া নিয়েছেন। অধিকাংশ রাইডারের অ্যাপ বন্ধ থাকায় যাত্রীরাও অ্যাপে সার্চ দিয়ে কোন বাহন পাননি।


রাজধানীর দনিয়ায় বসবাসরত এক মোটরসাইকেল চালক আজিজুলের সাথে কথা বলে জানা যায় যে, তিনি গত দুইবছর যাবত এই রাইড শেয়ারিং করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। কিন্তু গত রাত থেকে জ্বালানি তেলের নতুন দাম কার্যকর হওয়ার ভাড়া বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ৫০% (শতাংশ)।


তিনি আরও জানান আগে যেখানে জুরাইন থেকে শাহবাগ পর্যন্ত যেতে ভাড়া নিতেন ১২০-১৫০ টাকা, সেখানে আজ ভাড়া নিচ্ছেন ১৮০-২০০ টাকা পর্যন্ত। 


ভাড়া বেশি চাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মোটরসাইকেল চালক আজিজুল বলেন, অ্যাপে আগের ভাড়াই দেখাচ্ছে। কিন্তু তেলের দাম তো বেড়েছে। ২৬০ টাকার মধ্যে ১০০ টাকার বেশি যাবে তেল খরচ, এরপর কোম্পানিকে ২৫% হিসেবে দিতে হবে ৬৫ টাকা। আমার আর টাকা থাকবে কই!


তিনি আরও বলেন, তেলের দাম বাড়লেও অ্যাপে সার্চ করলে আগের ভাড়াই দেখাচ্ছে। এ কারণে আজ সকাল থেকে অ্যাপ বন্ধ করে দিয়েছে অনেকে। ১০০ বার সার্চ করেও বাইক পাওয়া যাচ্ছে না। সবাই কন্ট্রাক্টে যাচ্ছে। যদি আগের ভাড়া বহাল থাকে তাহলে বাইক চালকরা অ্যাপে যেতে পারবে না। 


এদিকে আজ শনিবার বিধায় বেসরকারি ও সায়ত্ত্বশাসিত অফিসগুলো খোলা ছিল। সেসব অফিসের কর্মরত মানুষের মধ্যে সৃষ্টি হয় ভোগান্তি। নির্দিষ্ট দূরত্ব যেতে গুণতে হয় অতিরিক্ত দ্বিগুন ভাড়া।


রাইড শেয়ারিং ব্যবহার করা যাত্রী সাদিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করেই জানালেন, সকালে বাসায় থেকেই অ্যাপে কল করে অফিসে যান নিয়মিত। কিন্তু আজ অ্যাপে না পেয়ে বাসস্ট্যান্ডে এসেছেন কিন্তু এখানে ভাড়া চাচ্ছে দ্বিগুন। সময়ের সাথে সাথে টাকাও দ্বিগুন খরচ করতে হয়েছে। সঙ্গে ভোগান্তি।


বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক ছাত্র জানান, তার বাসা লালবাগ হওয়ার বছর দুয়েক আগে পুরান ঢাকার লক্ষ্মীবাজারে যাতায়াতের জন্যে নিজের জমানো টাকা এবং তার বাবার সাহায্য নিয়ে একটি মোটরসাইকেল কিনেন। কিন্তু দফায় দফায় জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির ফলে টিউশনির সব টাকা চলে যায় মোটরসাইকেলের পিছনে। বর্তমানে তিনি এখন মোটরসাইকেলটি বিক্রি করে দেওয়ারও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।


শুক্রবার রাত ১২টার পর জ্বালানি তেলের নতুন দাম কার্যকর হয়েছে। ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে বর্তমানে ১১৪ টাকা, পেট্রোলের দাম ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা এবং অকটেনের দাম ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে মোটরসাইকেল আরোহীদের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।


 

আরো পড়ুন