শিরোনাম :

  • রাজধানীতে ট্রাকের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ২দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
উত্তরায় নওয়াব হাবিবুল্লাহ স্কুলের ছাত্রদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ
নগর প্রতিবেদক, উত্তরা
২৩ আগস্ট, ২০২২ ১৫:৩১:৩৫
প্রিন্টঅ-অ+

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রাজধানীর উত্তরায় নওয়াব হাবিবুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রদের দুই গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। আজমপুর শাহজালাল এভিনিউতে সোমবার বিকেলের ওই ঘটনায় কমপক্ষে ৫ ছাত্র আহত হয়েছে।


সংঘর্ষে ১০ম শ্রেনীর ছাত্র আরিয়ান, আরজিন-সহ কমপক্ষে ৫ ছাত্র আহত হয়। অনন্ত অভি গ্রুপ বাপ্পি, শান্ত ও শাকিল আহত হয়। আহত ২ জনকে আজমপুর রেললাইন সংলগ্ন দক্ষিনখান ব্যারাক মার্কেটের একটি ফার্মেসীতে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 


প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা জানায়, উত্তরা -পশ্চিম এলাকার কিশোর গ্যাং অনন্ত অভি গ্রুপের সাথে উত্তরা পূর্ব এলাকা ভিত্তিক কিশোর গ্যাং বাপ্পি, শান্ত ও শাকিল গ্রুপের মধ্যে বিকেল সাড়ে ৪টায় আজমপুর রাজউক ও বঙ্গবাজার মার্কেটে তর্কবিতর্ক হয়। এরই জের ধরে উভয় গ্রুপের সদস্যরা বিকেলে ফেরার পথে স্কুল গেটে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।  অভি গ্রুপের ৮ম, ৯ম, ১০ম ও একাদশ শ্রেণীর সমর্থকদের উপর হামলা করলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় হাবিবুল্লা গেট থেকে আজমপুর রেল লাইন পর্যন্ত ২ গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া এবং সংঘর্ষে পুরো এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।


প্রত্যক্ষদর্শি নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ছাত্র জানান, অভি গ্রুপের সমর্থকদের উপর হামলায় কলেজের অধ্যক্ষ শাহীনূর মিয়া সহ একাধিক শিক্ষকের সহযোগিতা ছিলো । এদের মধ্যে শিক্ষক শরিফুল ইসলাম ও মনির স্যার অন্যতম। আহত আরইয়ানকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন কলেজ শিক্ষক শরিফুল ইসলাম ও মনির।


ঘটে যাওয়া ঘটনার বিষয় জানতে অধ্যক্ষ শাহীনূর মিয়ার সাথে মুঠো ফোনে ঘটনার বিবরণ জানতে চাইলে তিনি আমার বার্তাকে বলেন, আমি আজকে সকালে বিষয়টি জেনেছি শুনেছি। আমরা প্রশাসনের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিব। শিক্ষক জড়িত থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করে বলেন, শিক্ষকরা ঘটনা শুনে সেখানে গিয়েছেন, তারপরও আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবো। এর আগে অধ্যক্ষ শাহীনুরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে নারী কেলেঙ্কারি সহ নান বিষয়ে নিউজ হয়েছিল বলে জানা গেছে।


উত্তরা পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্য জহিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, তিনি আমার বার্তাকে বলেন, আপনাদের সহযোগিতা নিয়ে আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ছাত্র শিক্ষক অবিভাবকদের সাথে কথা বলবো, যাতে করে এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে। আপনারা যেকোনো বিষয় আমাদেরকে জানালে আমরা ব্যবস্থা নিবো।


 

আরো পড়ুন