শিরোনাম :

  • নিজেকে বিজয়ী করতে যা করতাম এখনও তা-ই করব : আ জ ম নাছির অস্ত্র ঠেকাতে বিমানবন্দরে বসছে অত্যাধুনিক বডি স্ক্যানার সরকার ও জনগণের বন্ধন যত বেশি মজবুত হবে গণতন্ত্র তত টেকসই হবে : রাষ্ট্রপতি কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘের দেয়া প্রস্তাব ভারতের নাকচ
দক্ষিণ আফ্রিকায় যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ ভাইয়ের মৃত্যু
নোয়াখালী প্রতিনিধি :
২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৪৩:৩৪
প্রিন্টঅ-অ+


দক্ষিণ আফ্রিকার পাশের দেশ মোজাম্বিকের মুকুবা শহরের পাশে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় আরাফাত (২০) ও আল-আমিন (২২) নামে দুই ভাইয়ের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুর একটায় এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত দুই ভাইয়ের বাড়ি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার মীরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের পাটোয়ারি বাড়ি। তাদের বাবার নাম সালেহ আহম্মেদ। দুই ভাইয়ের এক সঙ্গে মর্মান্তিক মৃত্যুতে গ্রামের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। পরিবারের স্বজনদের মাঝে চলছে শোকের মাতম।

এ ঘটনায় দুই মোজাম্বিক নাগরিকসহ মোট চারজন ঘটনাস্থলে নিহত হয় এবং আরও তিন বাংলাদেশি মারাত্মক আহত হয়।

নিহত দুই ভাইয়ের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় পরিবারের স্বজনদের মাঝে চলছে শোকের মাতম। এক সঙ্গে মর্মান্তিক মৃত্যুতে গ্রামের বাড়িসহ গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ।

নিহতের স্বজনরা জানান, হতদিরদ্র মোহাম্মদ হোসেন দিনমজুরের কাজ করেন। প্রায় তিন বছর আগে জমি জমা বিক্রি ও বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ঋণ করে বড় ছেলে হাছানকে দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠান। বড় ছেলে কিছু টাকা জোগাড় করে এবং বাকি টাকা গ্রামের ব্যাংক থেকে ঋণ করে বেকার দুই ভাই আরাফাত ও আল- আমিনকে দক্ষিণ আফ্রিকায় নেয়ার জন্য দালালকে দেয়। দালালের মাধ্যমে কিছুদিন আগে এক ভাই প্রথমে দুবাই যায় এবং আরেক ভাই কিছুদিন পর দুবাই যায়। সেখান থেকে দুই ভাইসহ আরও কয়েকজনকে সড়ক পথে প্রথমে কেনিয়া ও পরে মোজাম্বিক হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় নেয়ার কথা ছিল। কিন্তুু বৃহস্পতিবার দুপুরে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার পথে মোজাম্বিকের মুকুর নামকস্থানে তাদের বহনকারী গাড়িটির দুর্ঘটনা ঘটলে দুই ভাইসহ চারজন নিহত হয়। আহতরা হলেন, মেহেদী হাছান, হুমায়ুন কবির ও ইকবাল হোসেন। আহতের মধ্যে ইকবাল হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

নিহত দুইজনের কাছ থেকে পাওয়া পাসপোর্ট দেখে স্থানীয় বাংলাদেশিরা পরিচয় নিশ্চিত হন এবং গ্রামের বাড়িতে খবর দেন। রাত একটার সময় তাদের মোজাম্বিকের মকুবা এলাকায় দাফন করা হয়।



আমার বার্তা/২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯/রহিমা


আরো পড়ুন