শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
প্রদীপ-লিয়াকতের ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে
০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ ১৫:৫৮:৩১
প্রিন্টঅ-অ+

মেজর সিনহা হত্যা মামলায় টেকনাফ থানার বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও এসআই পরিদর্শক লিয়াকত আলীর মৃত্যুদণ্ডের নথি হাইকোর্টে ডেথ রেফারেন্স হিসেবে পৌঁছেছে।


মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দিকে হাইকোর্টের ডেসপাস শাখায় ডেথ রেফারেন্সটি পৌঁছেছে বলে জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ কর্মকর্তা সাইফুর রহমান।


তিনি জানান, সংশ্লিষ্ট কক্সবাজার আদালতের কর্মকর্তারা রায়সহ মামলার নথি হাইকোর্টে নিয়ে আসেন। যদি নিম্ন আদালত কোনো মামলায় কারো মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন, তাহলে মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করতে যুক্তিতর্ক শোনার মাধ্যমে সেই রায় যাচাই-বাছাই করেন হাইকোর্ট। ফৌজদারি কার্যবিধির (সিআরপিসি) প্রাসঙ্গিক বিধান অনুযায়ী, রায় ঘোষণার পর মামলার নথিপত্র এবং রায় নিম্ন আদালত থেকে ডেথ রেফারেন্স হিসেবে হাইকোর্টে পাঠানো হয়।


গত ৩১ জানুয়ারি বিকেলে কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইলের আদালত সিনহা হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন। এ ছাড়া টেকনাফ থানার এসআই নন্দদুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল রুবেল শর্মা ও সাগর দেব, বাহারছড়ার মারিশবুনিয়া গ্রামের মো. নুরুল আমিন, মোহাম্মদ আইয়াজ ও মো. নিজাম উদ্দিনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।


গত ২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ রোডের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি (টেকনাফে দুটি, রামুতে একটি) মামলা দায়ের করে।


ঘটনার পাঁচ দিন পর ৫ আগস্ট কক্সবাজার আদালতে টেকনাফ থানার বহিষ্কৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এ চারটি মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় র‍্যাব।


পরে ২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর প্রদীপ কুমার দাশসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও র‍্যাব-১৫ কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মো. খাইরুল ইসলাম। অভিযোগপত্রে সিনহা হত্যাকাণ্ডকে একটি ‘পরিকল্পিত ঘটনা’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এতে সাক্ষী করা হয় ৮৩ জনকে।

আরো পড়ুন