শিরোনাম :

  • নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ জবানবন্দিতে বুলুসহ ১৫ বিএনপি নেতার নাম পেয়েছে পুলিশ সেনা অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল সুদান, সংঘর্ষে নিহত ৭দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২
লক্ষীপুরে আহত যুবলীগের নেতাকর্মীদের পাশে কেন্দ্রীয় নেতারা
লক্ষীপুর প্রতিনিধি
২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১১:৪৫:২৩
প্রিন্টঅ-অ+


লক্ষীপুরে জেলা যুবলীগের বর্ধিত সভাকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় নেতাদের শুভেচ্ছা জানাতে অপেক্ষা করার সময় যুবলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনা আহত নেতাকর্মীদের দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান কেন্দ্রীয় নেতারা। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দলীয় নেতাকর্মীদের দেখতে গিয়ে সমবেদনা এবং দলের প্রতি আস্থা রাখার মত প্রকাশ করেন তারা। এসময় মামলায় না গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের উপর আস্থা রয়েছে বলে মত প্রকাশ করেন আহত নেতারা ও তাদের পরিবার ।

এদিকে বর্ধিত সভায় গণমাধ্যম কর্মীদের প্রবেশে বাধার মধ্য দিয়ে দুপুরে শুরু হওয়া সভা শেষ হয় রাত সাড়ে ৮টায়। কেন্দ্রীয় নেতাদের বরণ করতে বেলা ১২টা থেকে পদ প্রত্যাশীরা নিজ নিজ কর্মী সমর্থকদের নিয়ে রামগঞ্জ-লক্ষীপুর সড়কসহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নেন। এসময় জেলা যুবলীগ সভাপতি টিপু ও সাধারণ সম্পাদক নোমান নেতাদের বরণ করতে ওই সড়কে তাদের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে যাওয়ার পথে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের পদ প্রত্যাশী সৈয়দ নুরুল আজিম বাবর, জেলা যুবলীগ সভাপতি সালাহ উদ্দিন টিপুসহ কমপক্ষে ১২ জন নেতাকর্মী আহত হন। আহতদের সদর হাসপাতালে ভর্তিসহ স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এদিকে বর্ধিত সভা শেষে রাতে হাসপাতালে আহত নেতাকর্মীদের দেখতে যান সংঠনটির প্রেসিডিয়াম সদস্য হাবিবুর রহমান পবন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ নাইম, উপ পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শামছুল ইসলাম পাটোয়ারীসহ কেন্দ্রীয় নেতারা এবং তাদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন তারা। এসময় আহত নেতাকর্মীরা দুপুরের সংঘর্ষের ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে দলের সিদ্ধান্তের প্রতি আস্থাশীল রয়েছেন বলে জানান।  

এদিকে যুবলীগ সূত্রে জানা যায়, সভায় কেন্দ্রীয় নেতারা দলকে ঢেলে সাজাতে নানা দিক নির্দেশনা দেন। একই সঙ্গে মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি ও আহ্বায়ক কমিটি গঠনে আগামী দু’দিনের মধ্যে কেন্দ্রের অনুমতি নিয়ে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নত বাংলাদেশ গঠনে ঐক্যবদ্ধ থাকতে গুরুত্বারোপ করেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ২৩ নভেম্বর সালাহ উদ্দিন টিপুকে সভাপতি ও আবদুল্লাহ আল নোমানকে সাধারণ সম্পাদক করে তিন বছরের জন্য কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর নানা বির্তকে পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়নি।

আমার বার্তা/গাজী আক্তার


আরো পড়ুন